হাবিবুল বাশারকে ছাড়িয়ে সাদমান

|

মাত্র এক টেস্ট খেলেই হাবিবুল বাশার সুমনকে ছাড়িয়ে গেলেন সাদমান ইসলাম অনিক। ঢাকা টেস্টে অভিষেক ম্যাচে ৭৬ রানের ইনিংস খেলার মধ্য দিয়ে জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল বাশার সুমনকে ছাড়িয়ে যান সাদমান।

২০০০ সালে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রথম টেস্টে অভিষেক হয় হাবিবুল বাশারের। বাংলাদেশের অভিষেক টেস্টে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ৭১ রানের ইনিংস খেলেন বতর্মানে জাতীয় দলের নির্বাচকের দায়িত্বে থাকা সুমন।

জাতীয় দলের হয়ে ৫০টি টেস্ট খেলে ১৮টিতে নেতৃত্ব দেন হাবিবুল বাশার। ব্যাট হাতে তিন সেঞ্চুরির সাহায্যে ৩ হাজার ২৬ রান করে অবসরে যান দেশের অন্যতম সফল এই অধিনায়ক।

শুক্রবার ঢাকা টেস্টে অভিষেক হয় সাদমান ইসলাম অনিকের। দেশের ৯৪তম ক্রিকেটার হিসেবে টেস্ট ক্যাপ পরেন সাদমান।

এদিন ১৪৭তম বলে জোমেল ওয়ারিক্যানকে সুইফ শটে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ফিফটি পূর্ণ করেন সাদমান। সেঞ্চুরির পথে অগ্রসর হওয়া ২৩ বছর বয়সী এই ওপেনার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের প্রথম ম্যাচে ফেরেন ৭৬ রান করে।

১৯৯ বল খেলে ৬ চারের সাহায্যে ৭৬ রান করার মধ্য দিয়ে হাবিবুল বাশারকে ছাড়িয়ে যান সাদমান। তবে বাংলাদেশের অভিষেক টেস্টে সেঞ্চুরি করে ইতিহাসের পাতায় নিজের নাম লিখিয়েছেন আমিনুল ইসলাম বুলবুল।

এরপর ২০০১ সালে শ্রীলংকার বিপক্ষে কলম্বো টেস্টে নিজের অভিষেকে সবচেয়ে কম বয়সী ক্রিকেটার হিসেবে সেঞ্চুরি করে বিশ্বে রেকর্ড গড়েন মোহাম্মদ আশরাফুল।

তৃতীয় বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে ২০১২ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে, খুলনা টেস্টে অভিষেকে সেঞ্চুরি করেন অলরাউন্ডার আবুল হাসান রাজু।

টেস্ট অভিষেকে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে সবচেয়ে বেশি রান সংগ্রহের দিক থেকে সাদমান আছে সাতে। ১৪৫ রান নিয়ে সবার ওপরে আমিনুল ইসলাম, ১১৪ রান নিয়ে দুইয়ে সাবেক অধিনায়ক আশরাফুল। ১১৩ রান নিয়ে তিনে আবুল হাসান রাজু।

অভিষেক ম্যাচে অপরাজিত ৮৫ রান করেছেন জাভেদ ওমর বেলিম, ৮৪ রান করেছেন দেশ সেরা ওপেনার তামিম ইকবাল। ৭৮ রান করেছেন জাতীয় দলে ‘সাবেক’ হয়ে যাওয়া নাজিমুদ্দিন।









Leave a reply