আল্লামা শফীর মন্তব্য সরকারের নীতির সাথে সম্পর্কিত নয়: শিক্ষা উপমন্ত্রী

|

হেফাজতে ইসলামের আমির আহমদ শফী নারী শিক্ষা নিয়ে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা একেবারেই তার ব্যক্তিগত। সরকারের নীতির সাথে এর কোনো সম্পর্ক নেই বলে জানিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী।

চট্টগ্রামে নিজ বাসায় সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে এমন্তব্য করেন তিনি। এসময় উপমন্ত্রী আরও বলেন, বিগত সময়ের মতো পাঠ্যপুস্তকে সাম্প্রদায়িক কোনো কিছু যেন না থাকে, সে বিষয়ে বিশেষ দৃষ্টি রাখবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এসময় শিক্ষা খাতের নানা গুরুত্বপূর্ণ দিক তুলে ধরেন মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

শুক্রবার সন্ধ্যায় হাটহাজারী মাদ্রাসার ১১৮-তম বার্ষিক মাহফিল ও দস্তারবন্দি সম্মেলনে ওই মাদ্রাসার পরিচালক ও হেফাজত আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী বলেন, আপনাদের মেয়েদেরকে স্কুল-কলেজে দেবেন না। বেশি হলে ক্লাস ফোর-ফাইভ পর্যন্ত পড়াতে পারবেন। আর বেশি যদি পড়ান পত্রপত্রিকায় দেখতেছেন আপনারা। ওই মাইয়া (মেয়ে) ক্লাস এইট, নাইন, টেন, এমএ ও বিএ পর্যন্ত পড়ালে কিছুদিন পর আপনার মেয়ে থাকবে না। তাই আপনারা আমার সঙ্গে ওয়াদা করেন। বেশি পড়ালে আপনার মেয়েকে টানাটানি করে অন্য পুরুষ নিয়ে যাবে। আমার এ ওয়াজটা মনে রাখবেন।’

এ প্রসঙ্গে শিক্ষা উপমন্ত্রী বলেন, মেয়েদের শিক্ষার বিষয় নিয়ে যিনি এ মন্তব্যটা করেছেন তিনি তার ব্যক্তিগত মতামত দিয়েছেন। তিনি বাংলাদেশের শিক্ষানীতি প্রণয়ন বা শিক্ষা ব্যবস্থাপনা পরিচালনা বা শিক্ষাখাতের কোনো নির্বাহী দায়িত্বে নেই। আর এটা আমাদের রাষ্ট্রনীতির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়।

পাঠ্যপুস্তকে সাম্প্রদায়িকীকরণ এবং বিভিন্ন লেখকের লেখা বাদ দেয়ার বিষয়ে নওফেল বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ধর্মনিরপেক্ষ রাজনৈতিক আদর্শে বিশ্বাস করে। এছাড়া বাংলাদেশের সংবিধান ধর্মনিরপেক্ষ বাংলাদেশ সৃষ্টি করতে আমাদের বাধ্য করেছে।

মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল আরও বলেন, বর্তমান সরকার নারী শিক্ষাকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছে। আওয়ামী লীগ সরকারের আমলেই শিক্ষার মানোন্নয়নে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। এ খাতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন এরই মধ্যে হয়েছে।

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply