বোরকা পড়ে জাল ভোট দেয়ার সময় আটক, ২ বছরের জেল

|

গাইবান্ধা প্রতিনিধি
গাইবান্ধা-৩ (সাদুল্যাপুর-পলাশবাড়ী) আসনে ভোট গ্রহণ চলাকালে সাদুল্যাপুরের একটি কেন্দ্রে বোরকা পড়ে জাল ভোট দেয়ায় রওশন আলম মণ্ডলকে (৪০) দুই বছরের জেল ও পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। একই সঙ্গে অনাদায়ে আরও তিন মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন বিচারক।

রবিবার (২৭ জানুয়ারি) ভোট গ্রহণের শেষ মুহূর্তে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে কান্তনগর বিণয় ভূষণ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে বোরকা পড়ে ভোট দেয়ার সময় তাকে আটক করে পুলিশ। পরে তাৎক্ষণিকভাবে কেন্দ্রের ভিতরেই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে এ সাজা প্রদান করেন বিচারক।

দণ্ডপ্রাপ্ত রওশন আলম সাদুল্যাপুর উপজেলার কান্তনগর বিণয় ভূষণ উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সাবেক সভাপতি। দামোদরপুর ইউনিয়নের মধ্যে ভাঙ্গামোড় গ্রামের মো. মোনতাজ আলীর ছেলে। রওশন আলী মন্ডল সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ সাদুল্যাপুর উপজেলা যুবজোটের নেতাও ছিলেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সাদুল্যাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) এমরানুল কবীর জানান, ভোট গ্রহণ চলাকালে কেন্দ্র ভিতরে নারীদের লাইনে বোরকা পড়ে দাঁড়ায় রওশন আলম। এ সময় কেন্দ্রের দায়িত্বরত পুলিশের সাথে কথা হয় রওশনের। কিন্তু তার কথাবার্তা শুনে পুলিশের সন্দেহ হয়। এক পর্যায়ে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করেন তিনি। এসময় পুলিশও পিছে ছুটে এক পর্যায়ে তাকে আটক করে।

তিনি আরও জানান, আটক রওশনকে তাৎক্ষণিকভাবে কেন্দ্রে থাকা বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট রমেশ কুমার দাগার কাছে হাজির করা হয়। পরে বিচারক তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে জাল ভোট দেয়ার কথা স্বীকার করেন তিনি। আটক রওশনের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী বিচারক তাকে দুই বছরের জেল ও পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেন। অনাদায়ে আরও তিনি মাসের সাজার আদেশ দেন বিচারক। সোমবার দুপুরের মধ্যে তাকে আদালতে পাঠানো হবে।









Leave a reply