প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ২০ রানের আক্ষেপ টাইগারদের

|

ব্লুমফন্টেইনে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে ২০ রানে হেরে গেল বাংলাদেশ। এর ফলে পরাজয় দিয়েই দ্বিতীয় দফার অধিনায়কত্ব শুরু করলেন সাকিব আল হাসান।

আগে ব্যাট করা দক্ষিণ আফ্রিকার ১৯৫ রানের জবাবে সৌম্য সরকারের ব্যাটে শুরুটা দারুণ করেছিল টাইগাররা। তিন ওভারে বিনা উইকেটে ৩৩ রান। সেখান থেকে শেষ পর্যন্ত ৯ উইকেটে ১৭৫ রানে গিয়ে থামে বাংলাদেশের ইনিংস। হাফ সেঞ্চুরিবিহীন বাংলাদেশের ইনিংসের সর্বোচ্চ সংগ্রাহক সৌম্য সরকার (৪৭)। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সাইফউদ্দিনের অপরাজিত ৩৯। মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের নির্ভীক ব্যাটিং দেখে নিশ্চয় আফসোস জেগেছে। বাংলাদেশের ইনিংসের শেষ দিকে ২৭ বলে অপরাজিত ৩৯ রানের কী দুর্দান্ত ইনিংসই না খেললেন সাইফউদ্দিন!

এর আগে, চতুর্থ ওভারের পঞ্চম বলে পড়ে বাংলাদেশের প্রথম উইকেট। হেনড্রিক্সের ফুল টসে ডিপ স্কোয়ার লেগে মিলারের হাতে ধরা পড়েন ইমরুল। ১১ বলে ১০ রান আসে ইমরুলের ব্যাট থেকে। বাংলাদেশ তখন ১/৪৩। এরপর দ্রুত রান তুলতে গিয়ে আকাশে বল তুলে দিয়ে আউট হন ওয়ানডাউনে নামা সাকিব আল হাসান। মিড-অফ থেকে দৌড়ে গিয়ে কঠিন ক্যাচ নেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। ফ্রাইলিঙ্ক পেয়ে যান তার প্রথম আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি উইকেট। ৮ বলে ১৩ রান করেন সাকিব।

এরপর, মুশফিকুর ক্রিজে এসেই ছক্কা হাঁকান ডুমিনিকে। সৌম্য সরকার তিন রানের জন্য মিস করেন হাফ সেঞ্চুরি। ৩১ বলে পাঁচ চার ও দুই ছয়ে ৪৭ রান করে এলবিডব্লিউ’র ফাঁদে পড়েন। প্রথমে অবশ্য আম্পায়ার আঙ্গুল তোলেননি। পরে রিভিউয়ের নিয়ে নিজেদের অনুকূলে সিদ্ধান্ত পায় দক্ষিণ আফ্রিকা। পরের ওভারেই সাজঘরে ফেরেন মুশফিক (১৩)। আবারও ক্যাচ নেন এবি। বোলার ফাঙ্গিসো। মুশফিককে অনুসরণ করতে একটুও সময় নেননি মাহমুদউল্লাহ।

এরপর মাহমুদুল্লাহ, সাব্বির তেমন কোনো প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারেননি। মেহেদী হাসান মিরাজের ৮ বলে ১৪ রান করে সাজঘরে ফিরেন। শেষ দিকে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ২৭ বলে অপরাজিত ৩৯ রান আফসোসই বাড়িয়েছে শুধু ।

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply