প্রধানমন্ত্রীকে হত্যাচেষ্টায় সেই ১১ জনের যাবজ্জীবন

|

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ২৮ বছর আগে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে দায়ের করা মামলায় কর্নেল আব্দুর রশিদসহ ফ্রিডম পার্টির ১১ নেতাকর্মীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে। আজ রোববার বিকালে এ রায় ঘোষণা করা হয়ভ

এর আগে সকালে একই ঘটনায় দায়ের করা হত্যাচেষ্টার মামলায় এই ১১ জনকে ২০ বছর করে কারাদণ্ড দেন আদালত। প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়েছে। হুমায়ুন নামে এক আসামিকে উভয় মামলায় খালাস পেয়েছেন।

ঢাকার চতুর্থ অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ মো. জাহিদুল কবির আজ দুপুরে প্রথম মামলাটির রায় ঘোষণা করেন।

১৯৮৯ সালের ১০ আগস্ট মধ্যরাতে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরের বাড়িতে গুলি ও বোমা হামলা হয়। সেসময় আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা সেই বাসাতে থাকতেন। বাসার নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ কনস্টেবল জহিরুল ইসলাম এ নিয়ে মামলা করেন।

পরে ১৯৯৭ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি ঘটনার তদন্ত শেষ করে হত্যা চেষ্টা ও বিস্ফোরক আইনে দু’টি অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ। আসামীদের মধ্যে কর্নেল রশিদসহ ৩ জন পলাতক। বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলায় ফাঁসির আদেশ হয়েছিল কর্নেল রশিদের।

মামলার ১২ আসামি হলেন- গোলাম সারোয়ার ওরফে মামুন, জজ মিয়া, ফ্রিডম সোহেল, সৈয়দ নাজমুল মাকসুদ মুরাদ, গাজী ইমাম হোসেন, খন্দকার আমিরুল ইসলাম কাজল, মিজানুর রহমান, হোমায়েন কবির, মো. শাজাহান বালু, লেফটেন্যান্ট কর্নেল আবদুর রশীদ, জাফর আহম্মদ এবং এইচ কবির। এদের মধ্যে প্রথম চারজন কারাগারে, পরের পাঁচজন জামিনে ও শেষের তিনজন পলাতক রয়েছেন।









Leave a reply