‘অস্ত্র আপনাদের আছে, আমাদেরও আছে, আসুন টেবিলে বসি’

|

প্রতিবেশী ভারতের সাথে সামরিক উত্তেজনা বৃদ্ধির প্রেক্ষিতে জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। আজ বুধবার সকালে পাকিস্তান সেনাবাহিনী কর্তৃক ভারতের দুটি যুদ্ধবিমান ভূপাতিত ও ভারতীয় ভূখন্ডে বোমা নিক্ষেপের পর বিকালে ৬ মিনিটের সংক্ষিপ্ত এই ভাষণে ইমরান খান ভারতকে আলোচনার টেবিলে বসার আহ্বান জানিয়েছেন।

ভাষণের শুরুতে পাক প্রধানমন্ত্রী তার দেশের জনগণের উদ্দেশে বলেন, ‘গতকাল সকাল থেকে ঘটা ঘটনা প্রবাহের প্রেক্ষিতে আমি জাতিকে আত্মবিশ্বাস জোগাতে চেয়েছি। পুলওয়ামার ঘটনার পর আমরা ভারতকে শান্তির প্রস্তাব দিয়েছিলাম। ওই হামলায় যারা স্বজন হারিয়েছেন সেসব পরিবারের কষ্ট আমি অনুভব করেছি। ঘটনার হাসপাতালে গিয়ে ভিকটিমদের কষ্ট দেখেছি। আমরা ভারতকে বলেছিলাম ঘটনার তদন্ত করবো। তাদেরকে সহায়তা করতে প্রস্তুত ছিলাম।

কিন্তু আশঙ্কা করেছিলাম ভারত আগ্রাসন চালাতে পারে। এজন্য তাদেরকে হুশিয়ার করেছিলাম। কাল যখন ভারত হামলা করলো, প্রথমে আমাদের সেনা কর্তৃপক্ষকে ডেকে ক্ষয়ক্ষতি পরিমাপ করতে বলেছিলাম। এরপর আমরা ততটুকুই করেছি যতটুকু দিয়ে এই বার্তা দেয়া যায় যে, আপনারা যদি আমাদের দেশে প্রবেশ করতে পারেন, তাহলে আমারও একই কাজ করতে পারি। তাদের দুটি মিগ ভূপাতিত করা হয়েছে। এখন সময় এসেছে মাথাকে কাজে লাগিয়ে প্রজ্ঞার সাথে আচরণ করা।”

ইমরান খান আরও বলেন, ‘সব যুদ্ধই ভুল হিসেব নিকেশের মাধ্যমে শুরু হয়। প্রথম বিশ্বযুদ্ধ কয়েক সপ্তাহের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে বলে ধারণা করা হয়েছিল। কিন্তু শেষ হয়েছিল ৪ বছর পর। একইভাবে কেউ ধারণা করেনি সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে ১৭ বছর আফগানিস্তানে থাকতে হবে যুক্তরাষ্ট্রকে।

আমি ভারতের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি, আপনাদের হাতে যেসব অস্ত্র আছে আমাদের হাতেও সেগুলো আছে। কিন্তু প্রশ্ন হলো আমরা উভয়ে কি কোনো ভুল হিসেবে নিকেশের মাশুল বইতে পারবো? যদি পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়, তাহলে তা আমার কিম্বা নরেন্দ্র মোদির কারো নিয়ন্ত্রণেই থাকবে না। পুলওয়ামা হামলার ভুক্তভোগীদের কষ্ট আমরা অনুধাবন করি এবং এ বিষয়ে তদন্ত ও সংলাপের জন্য আামরা প্রস্তুত। চলুন এক সঙ্গে টেবিলে বসি এবং আলোচনার মাধ্যমে সমস্যাটার সমাধান করি।’









Leave a reply