পারিবারিক কলহের জেরে শিশুপুত্রকে আছড়ে হত্যা করলো বাবা

|

স্টাফ রিপোর্টার, নরসিংদী
পারিবারিক কলহের জেরে নরসিংদীর মাধবদীতে পিতার বিরুদ্ধে আলিফ নামে ১৮ মাস বয়সী এক শিশুপুত্রকে আছড়ে হত্যার অভিযোগ ওঠেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত পিতা এমরান মিয়াকে আটক করেছে পুলিশ। রবিবার (৩ মার্চ) সকালে মাধবদী থানার মেহেরপাড়ার সৈকাদী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু তাহের দেওয়ান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও পরিবারের লোকজন জানান, পাঁচ বছর আগে সৈকাদি গ্রামের নাসির উদ্দিনের মেয়ে ফেরদৌসী বেগমকে পার্শ্ববর্তী পলাশ উপজেলার আব্দুস সালামের ছেলে এমরান মিয়ার কাছে বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের পর তাদের দাম্পত্য কলহ শুরু হয়। পারিবারিক অশান্তির কারণে ফেরদৌসী দুই বছর ধরে পিত্রালয়ে অবস্থান করছেন। ১৮ মাস আগে তাদের সংসারে শিশুপুত্র আলিফের জন্ম হয়। বখাটে পিতা এমরান প্রায়ই শ্বশুড় বাড়িতে গিয়ে স্ত্রীর কাছে অর্থ দাবি করত।

শনিবার রাতে এমরান শ্বশুরালয়ে অবস্থান করে। সকালে স্ত্রী ফেরদৌসীর কাছে টাকা দাবি করলে তা না দিয়েই শিশুপুত্র আলিফকে রেখে কর্মস্থলে যান স্ত্রী ফেরদৌসী। এই সুযোগে টাকা না পাওয়ার ক্ষোভে শিশুপুত্র আলিফকে মাথায় তুলে আছড়ে ফেলে দেয় পিতা এমরান। এতে ঘটনাস্থলেই শিশুটির মৃত্যু হয়। প্রতিবাদ করতে গেলে শাশুড়ি রাশিদা বেগমকে ছুরিকাঘাত করে এমরান। তার চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে এমরানকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন। পুলিশ নিহত শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। আহত রাশিদা বেগমকে নরসিংদী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।









Leave a reply