অভিনন্দনের পাঁজর ও মেরুদণ্ডে আঘাতের চিহ্ন!

|

পাকিস্তানী সেনা হেফাজত থেকে ফেরার পর থেকেই ভারতীয় বিমান বাহিনীর পাইলট অভিনন্দন বর্তমান দিল্লির সামরিক হাসপাতালে রয়েছেন সেখানে তার বিভিন্ন ধরনের শারীরিক পরীক্ষা করা হচ্ছে।

রোববার দেশটির সরকারি সংবাদ সংস্থার খবরে বলা হয়, অভিনন্দনের দেহের এমআরআই স্ক্যানে দেখা গেছে, অভিনন্দনের মেরুদণ্ডের নিচের অংশে চোট রয়েছে। পাশাপাশি তার পাঁজরে আঘাতের চিহ্ন মিলেছে।

তবে তার শরীরে কোনো ‘বাগ’-এর সন্ধান পাওয়া যায়নি। এ ধরনের ‘বাগ’ বা আড়িপাতার যন্ত্র পাকসেনা অভিনন্দনের দেহ ঢুকিয়ে দিতে পারে বলে আশঙ্কা করছিলেন চিকিৎসকরা।

মেরুদণ্ডে আঘাত লাগার বিষয়ে ধারণা করা হচ্ছে, পাক ফাইটার জেটের গুলিতে অভিনন্দনের মিগ ২১ বাইসনে আগুন লেগে যায়। তখনই তিনি আপতকালীন ‘ইজেক্ট’ করে বাইরে বেরিয়ে আসেন। এ ধরনের ইজেক্টের ফলে মেরুদণ্ডে আঘাত লাগতে পারে।

সূত্রের খবর, আগামী ১০ দিন সেনা হাসপাতালে থাকতে হবে অভিনন্দনকে। এই কয়েক দিন তার বিভিন্ন ধরনের চিকিৎসা ও পরীক্ষা হবে। এ ছাড়া তাকে পাকিস্তান বাহিনী কী ধরনের জেরা করেছে সেসব বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

প্রসঙ্গত, পাকিস্তানি সুপারসনিক বিমান এফ-১৬ এর আক্রমণে ভারতীয় পাইলটের নিয়ন্ত্রণে থাকা মিগ ২১ যুদ্ধবিমান বিধ্বস্ত হয়।

ভারত সরকার এক বিবৃতিতে তাকে দ্রুত এবং নিরাপদে ফিরিয়ে দেয়ার আহ্বান জানায়। এ বার্তার পর পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রথমে জানায়, অভিনন্দনকে ফিরিয়ে দিলে যদি সংঘাত এড়ানো যায়, তা হলে তারা তাকে ফেরত দেবে। পরে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানও শান্তির বার্তা দিতে পাইলটকে শুক্রবারেই মুক্তি দেয়ার ঘোষণা দেন।









Leave a reply