বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ গ্র্যান্ড মাস্টার হতে চায় বাংলাদেশের ফাহাদ

|

বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ গ্র্যান্ড মাস্টার হতে চায় বাংলাদেশেরই এক কিশোর। দেশকে নিয়ে যেতে চায় অন্য উচ্চতায়। তিনি হলেন দেশের সর্বকনিষ্ঠ দাবাড়ু ফিদে মাস্টার ফাহাদ। তার এমন আশা করা যে কল্পনা নয় তা এরইমধ্যে প্রমাণ করেছেন তিনি। ফিদে মাস্টার হয়েছে মাত্র ১০ বছর বয়সে। ১৪ বছরের জীবনে ঝুলিতে পুরেছে ৫টি স্বর্ণ পদকসহ দেশি-বিদেশি বহু স্বীকৃতি।

সেকালে রাজারা যুদ্ধে যেতেন চতুরঙ্গ সেনা সাজিয়ে। অশ্বারোহী, সৈন্য, গজ ও রথ। এই দ্বৈরথেই এক-একটি অঞ্চল জয় করতেন রাজা-মহারাজারা। কিন্তু সেই রাজাদের মতো যুদ্ধ করে দেশ জয় করার এখন দরকার হয়না,  কিস্তিমাতেই এখন পুরো বিশ্বকেই জয় করছেন দাবারুরা। আর এই বিশ্ব জয়ের স্বপ্ন দেখছেন  ফাহাদ। মাত্র ১০ বছর বয়সেই ফিদে মাস্টারের স্বীকৃতি পায় সে। ২০১৩ সালের জুলাইতে এই দাবাড়ুকে ফিদে মাস্টার উপাধিতে ভূষিত করে বিশ্ব দাবার সর্বোচ্চ সংস্থা-ফিদে। থাইল্যান্ডের শিয়াং মাইয়ে অনুষ্ঠিত ১৪তম এশিয়ান এইজ গ্রুপ চেজ চ্যাম্পিয়নশিপে অনুর্ধ্ব-১০ এর স্ট্যান্ডার্ড বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হয়ে  ফিদে মাস্টার উপাধি অর্জন করেন ফাহাদ।

ফাহাদ ৮ বছরে অর্জন করে সাব জুনিয়র চ্যাম্পিয়ন, ১০ বছরে জুনিয়র চ্যাম্পিয়ন, এবং ১২ বছরে জাতীয় দলে জায়গা পান; তার সব অর্জনই দেশের ইতিহাসে প্রথম।

ফাহাদ তার স্বপ্নের কথা জানায়। তিনি বলেন, প্রথমে আমি মোবাইল থেকে খেলতাম, সেখান থেকে আগ্রহটা পাই, আমি চাই বাংলাদেশ আমার মাধ্যমে ভালো উচ্চতায় যাক, আমি সেটাই চেষ্টা করছি।

এদিকে ১০ বছর বয়সে বিশ্ব যুব দাবা চ্যাম্পিয়নশিপে রানার আপ হয় ফাহাদ। প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে এই কৃতিত্ব দেখায় সে। ৫ টি স্বর্ণ, ৪টি করে রৌপ্য-ব্রোঞ্জ ছাড়াও আছে অনেক অর্জন। সবকিছুর শুরু মাত্র ৫ বছর বয়সে। দাবাই ধ্যান-জ্ঞান; ফাহাদের স্বপ্ন এখন আরও বড় কিছু করার। খেলার জন্য বেশিরভাগ সময় বিদেশে থাকতে হলেও পড়াশোনাটাও চালিয়ে যাচ্ছেন সমানতালে।

ফাহাদ জানান, আমি দাবাতে ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়ন হতে চাই, এটা আমার বড় লক্ষ্য। গ্রান্ড মাস্টারতো আছেই আমি বিশ্বের এক নম্বর দাবাড়ু হতে চাই। বিশ্বের এক নম্বর দাবাড়ু হওয়ার সাথে সাথে ফাহাদের রয়েছে দেশের জন্য কিছু করার শপথ। তিনি বলেন, যখন আমি বড় খেলোয়ার হবো দেশের জন্য কিছু করবো, দেশের দরিদ্র বাচ্চাদের জন্য কিছু করতে চাই।

ফাহাদের এই সফলতার পিছনের রহস্য কি এটা জানতে চাইলে ফাহাদ জানান, সফল হতে হলে আগে ভালো লাগতে হবে সেই জিনিসটার ওপর।

এদিকে ফাহাদের এই কৃতিত্বকে আরও সামনে এগিয়ে নেওয়ার জন্য সরকারকে পাশে থাকার আহ্বান জানান তার বাবা নজরুল ইসলাম। তিনি বলেন, ফাহাদের এই লেভেলটাকে ধরে রাখতে হলে বা এই লেভলটাকে আরও বড় করতে হলে মারাত্মকভাবে সাপোর্ট দরকার।

ফাহাদের এই বিশ্বের এক নম্বর দাবাড়ু হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে আশাবাদী দেশের গ্রান্ড মাস্টার জিয়াউর  রহমান। তিনি বলেন, যদি ভালো টুর্নামেন্ট খেলানো ও ভালো লেভেলের কোচিং করাতে পারলে ফাহাদ তার স্বপ্ন পূরণ করতে পারবে।

সম্ভাবনার সবটুকুই প্রমাণ করেছে ফাহাদ। পথচলা সহজ করে, তার স্বপ্ন পূরণে, সমাজ ও রাষ্ট্র কতোটা উৎসাহ যোগাবে তারওপরও নির্ভর করছে অনেক কিছু।

টিবিজেড/









Leave a reply