‘তোরা পাকিস্তানে চলে যা’: হোলির দিনে ক্রিকেট খেলায় আক্রান্ত মুসলিম পরিবার

|

দোষ বলতে হোলির দিন রাস্তায় ক্রিকেট খেলা। আর তার জন্যই নয়া দিল্লির গুরুগ্রামে আক্রান্ত হল এক মুসলিম পরিবার। ২৫ থেকে ৪০ জন যুবকের একটি দল ওই মুসলিম পরিবার এবং তাদের বাড়িতে বেড়াতে আসা আত্মীয়দের বেধড়ক মারল। লোহার রড, জলের পাইপ, হকি স্টিক দিয়ে মার– বাদ ছিল না কিছুই।

ঘটনায় আক্রান্ত ব্যক্তির নাম মহম্মদ সাজিদ। উত্তরপ্রদেশের বাসিন্দা এই ব্যক্তি গত তিন বছর ধরে স্ত্রী সামিনা এবং ছয় সন্তানকে নিয়ে গুরুগ্রামে বসবাস করছিলেন। ঘটনার দিন গত বৃহস্পতিবার তার ভাইপো দিলশাদ এবং কয়েকজন বন্ধু বাড়ির সামনের ফাঁকা রাস্তায় ক্রিকেট খেলছিলেন।

তিনি পরে সংবাদমাধ্যমকে ঘটনা প্রসঙ্গে বলেন, ‘‌আমরা তখন ক্রিকেট খেলছিলাম। আচমকা দু’‌জন যুবক বাইকে করে সেখানে আসে এবং বলে, এখানে কী করছিস?‌ পাকিস্তানে গিয়ে ক্রিকেট খেল। এরপরই আমার কাকা সাজিদ সেখানে আসেন। তিনি বচসা থামানোর চেষ্টা করলে বাইকের পিছনে বসে থাকা যুবক নেমে এসে তাঁকে চড় মারে। সেই সঙ্গে বলে, দাঁড়া আমরা দেখাচ্ছি কী করতে পারি।

এর ১০ মিনিট পর দু’‌টি বাইকে আরও ছ’‌জন যুবক আসে। তাঁদের সঙ্গে আরও অনেককে পায়ে হেঁটে আসতে দেখে আমরা ভয়ে বাড়ির ভিতরে ঢুকে যাই।’ এখানেই না থেমে দিলশাদ আরও জানায়, ‘আমাদের বাড়ির ভিতর ঢুকে যেতে দেখে, ভিড়ের মধ্যে থেকে অনেকে চিৎকার করে বাইরে আসতে বলে। কিন্তু আমরা বাইরে না বেরোনোয় ওরাই জোর করে বাড়ির ভিতর ঢুকে পড়ে। কারোর হাতে হকি স্টিক ছিল, কারোর হতে ছিল লোহার রড। এসব দিয়েই ওরা আমাদের বাড়ি ভাঙচুর করতে থাকে। আমাদের প্রত্যেককে বেধড়ক মারধর করে। লোহার রড, বাঁশ, বল্লম, তলোয়ার, হকি স্টিক কোনও কিছুই বাদ যায়নি।

এরপর বাড়ির দামী জিনিসপত্র লুট করে পালিয়ে যায়। এই সময় পুলিশকে ফোন করলেও তারা সাড়া দেয়নি। হামলাকারীরা বাড়ি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় হুমকি দেয়, বাড়ি ছেড়ে চলে যাও নাহলে আমরা বাড়িতে জবরদখল করব।’

ঘটনা প্রসঙ্গে সাজিদের স্ত্রী সামিনা বলেন, ‘আমি ওই সময় ‌রান্নাঘরে ছিলাম। আচমকাই বেশ কয়েকজন বাড়ির ভেতর ঢুকে সবাইকে বেধড়ক মারতে শুরু করে। আমি বারবার মিনতি করলেও ওরা আমার কথা শোনেনি। ওরা জানলা–দরজা, গাড়ি এবং বাড়ির মূল্যবান আসবাবপত্র ভাঙচুর করতে থাকে। এরপর বেশ কিছু সোনার গয়না এবং ২৫ হাজার নগদ টাকা চুরি করে চলে যায়।’ ‌‌‌‌

গোটা ঘটনাটির ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই বিভিন্ন মহল থেকে সমালোচনা শুরু হয়। এদিকে, পুলিশ জানিয়েছে, ভারতীয় দণ্ডবিধি ১৪৮, ১৪৯, ৩০৭, ৩২৩, ৪২৭, ৪৫২ এবং ৫০৬ ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। ভিডিও দেখে অভিযুক্তদের শনাক্ত করা হয়েছে। তাদের মধ্যে থেকে ছয়জনকে পুলিশ গ্রেপ্তারও করেছে। বাকিদের খোঁজে তল্লাশি চলছে।

এই ছাদে উঠেও মারধার করা হয় বাড়ির বাসিন্দাদেরকে

সূত্র: ইন্ডিয়া টুডে, আজকাল।









Leave a reply