আগুনের তাপ সহ্য না করতে পেরে লাফ দেন রেজাউল

|

আগুন লাগার পর জীবন বাঁচাতে ভবনটি থেকে লাফ দিয়ে আহত হয়েছেন রেজাউল আহমেদ (৩৬) নামে এক ব্যক্তি। তিনি বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

আগুনের তীব্র তাপে সহ্য না করতে পেরে ভবন থেকে লাফ দেন রেজাউল। নিচে পড়ে তার হাত ও পা ভেঙে গেছে।

ঢামেক হাসপাতালের সামনে রেজাউল আহমেদের মামাশ্বশুর জনি বলেন, ‘যখন আগুন বাড়তে থাকে, তখন রেজাউল ওইখান থেকে লাফ দেন। ওরে (রেজাউল) না করেছিলাম যেন ওইখানে থাকে। পরে হাসপাতালে নেয়ার পর জ্ঞান ফিরলে রেজাউল আমাকে জানায়- মামা এমুন গরম হইছে আমি আর টিকতে পারতেছিলাম না। তাই লাফ দিছি।’

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা ৫৫ মিনিটের দিকে বনানীর কামাল আতাতুর্ক অ্যাভিনিউয়ে ২২ তলা ভবনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ভবনটির ৯ তলা থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। পরে এ আগুন ছড়িয়ে পড়ে পুরো ভবনে।

ফায়ার সার্ভিসের ২০টি ইউনিট কাজ করে যাচ্ছে। সেই সঙ্গে বিল্ডিংয়ের ওপর থেকে হেলিকপ্টার থেকে বালু ফেলে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

এছাড়াও ল্যাডার ইউনিট (বহুতল ভবন থেকে উদ্ধারকারী সিঁড়ি) ও মোটরসাইকেল ইউনিটও উদ্ধারকাজে অংশগ্রহণ করেছে।

কাচে ঘেরা পুরো ভবনটির বাইরে থেকে কাচ ভেঙে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ভেতরকার ধোঁয়া বের করছেন এবং ল্যাডার দিয়ে আটকেপড়া মানুষদের উদ্ধার করে নিচে নামিয়ে আনছেন।

ভবনের নিচে রাখা হয়েছে বেশ কয়েকটি অ্যাম্বুলেন্স। আহতের দ্রুত চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে সেখানে। আহতদের অনেককেই কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত আগুন নিয়ন্ত্রণে আসেনি। এ অগ্নিকাণ্ডে এখন পর্যন্ত ১১ জন নিহত ও বেশ কয়েকজন হতাহতের কথা জানা গেছে।

ভবনটিতে দ্যা ওয়েভ গ্রুপ, হেরিটেজ এয়ার এক্সপ্রেস, আমরা টেকনোলজিস লিমিটেড ছাড়াও অর্ধশতাধিক অফিস রয়েছে।

এদিকে ভবনে ভেতর আটকেপড়াদের উদ্ধারে ঘটনাস্থলে কাজ করছে ৫টি হেলিকপ্টার। বড় রশি ছেড়ে তাদের উদ্ধারের চেষ্টা করা হচ্ছে। উদ্ধারকৃতদের কুর্মিটোলা ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হচ্ছে।

যমুনা অনলাইন: আরএম









Leave a reply