ঘটনাস্থল সার্চ করতে সারা রাত লেগে যাবে: ডিএমপি কমিশনার

|

রাজধানীর বনানীর এফ আর টাওয়ারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে তিনি বনানীতে ছুটে যান।

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ফায়ার সার্ভিস ভবনের ভেতরে প্রত্যেক ফ্লোর সার্চ করবে। এটা সার্চ করতে সারা রাত লেগে যাবে। সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে এটা করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী এ ঘটনা মনিটরিং করছেন। আমরা খেয়াল রাখছি যাতে ভবনের ভেতর থেকে কোনো মালামাল চুরি না হয়। সে দিকে আমরা নজর দিচ্ছি। এ এলাকার সব দায়িত্ব আমরা নিচ্ছি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা- ১৭ আসনের সংসদ সদস্য আকবর হোসেন পাঠান ফারুক।

এদিন দুপুর ১২টা ৫৫ মিনিটের দিকে বনানীর ১৭ নম্বর রোডের ওই ভবনটির ৯ তলা থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। পরে এ আগুন ছড়িয়ে পড়ে পুরো ভবনে।

বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ওই ঘটনায় অন্তত ১৯ জন নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। এতে আরও ৭৩ জন আহত হয়েছে।

এ সময় ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া এ ঘটনাকে হৃদয়বিদারক উল্লেখ করে বলেন, এ ঘটনা মর্মান্তিক, আমরা মর্মাহত। অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তবে দ্রুত ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে এসেছে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে নৌবাহিনী, বিমানবাহিনী ও সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার এসেছে। আমরা ফায়ার ব্রিগেডকে সহযোগিতা করেছি। যাতে তাদের গাড়ি সহজে ঢুকতে পারে। জনতার জটলা ভেঙে গাড়ি ঢুকতে সহযোগিতা করেছে পুলিশ।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, এ ঘটনার পর থেকে আমাদের পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। আমার সঙ্গে স্থানীয় সংসদ সদস্য রয়েছেন। নিহতদের নিকট আত্মীয়দের জন্য তালিকা তৈরি করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত আমাদের হাতে সাতজনের মৃত্যুর সংবাদ রয়েছে। আহত হয়েছেন ৭৩ জন। তাদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ১৩ জন নিখোঁজ রয়েছেন। এ ঘটনার পরেই প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছেন যাতে আহতরা সর্বোচ্চ চিকিৎসাসেবা পায়।

সাধারণ জনগণকে ধন্যবাদ জানিয়ে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ঘটনার পর জনগণ এগিয়ে এসেছে। সাধারণ জনগণ আমাদের সহযোগিতা করেছে। আমরা সারা রাত এখানে থাকব।

দেশবাসীর উদ্দেশে ডিএমপি কমিশনার বলেন, আপনারা দোয়া করুন। দেশবাসী দোয়া করুন। আমরা যাতে দ্রুত উদ্ধারকাজ শেষ করতে পারি।

উৎসুক জনতার উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনাদের অনুরোধ করছি আপনারা রাস্তা ফাঁকা করে দেবেন। জনজট সৃষ্টি করবেন না।

এ সময় সাংবাদিকদের উদ্দেশ করে ডিএমপি কমিশনার বলেন, আপনারা প্রশাসনকে সহযোগিতা করবেন। এমনভাবে কাজ করবেন যাতে ফায়ার সার্ভিসের চলাচলের কোনো অসুবিধা না হয়। কন্ট্রোলরুমে সব তথ্য থাকবে, সেখান থেকে তথ্য নিতে পারবেন।

সাংবাদিকদের প্রশ্নে ঘটনার তদন্ত নিয়ে তিনি বলেন, ফায়ার সার্ভিস থেকে তদন্ত করা হবে। এ ঘটনায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকেও তদন্ত করা হবে। এখন ইমপোরটেন্ট হলো জীবন বাঁচানো, বিল্ডিং পরিষ্কার করা, ভবনের খেয়াল রাখা- যাতে লুটপাট না হয়।

টাইম টু টাইম প্রধানমন্ত্রী মনিটরিং করছেন বলেও ডিএমপি কমিশনার জানান। এ সময় তিনি গুজব থেকে সাবধান থাকার কথা বলেন। এতে বড় ধরনের বিপদ ঘটতে পারে বলেও তিনি সতর্ক করেন।

এর আগে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন মেয়র আতিকুল ইসলাম।









Leave a reply