নুসরাত হত্যার দায় স্বীকার করে নূরউদ্দিন-শাহাদাতের জবানবন্দি

|

ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে দুই আসামি নূরউদ্দিন ও শাহাদাত শামীম।

রোববার বিকেলে কড়া নিরাপত্তায় আসামিদের ফেনীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে নেয়া হয়। এর পরই জবানবন্দি রেকর্ড শুরু করেন বিচারক জাকির হোসেন। প্রায় ৯ ঘণ্টা ধরে তাদের জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়।

জবানবন্দিতে নুর বলেছেন, ‘এপ্রিলের ১ ও ৩ তারিখ কারাগারে আটক মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদদৌলার সঙ্গে দেখা করেন তিনি। সেখানেই নুসরাতের গায়ে আগুন দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। অধ্যক্ষ সিরাজই এই পরামর্শ দেন।’ পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী অন্তত ২৫ জন এই হত্যায় জড়িত ছিলো।

আদালতে আসামি পক্ষের হয়ে কোন আইনজীবী থাকতে রাজি হননি। জবানবন্দি শেষে বিচারক আসামিদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এরমধ্যে শাহাদাতের নেতৃত্বে আগুন দেয়া হয় রাফির শরীরে। আর একই সময়ে নূরউদ্দিন ছাদের গেটে পাহারায় ছিল বলে নিশ্চিত করেছে পিবিআই।

৬ এপ্রিল আলিম পরীক্ষার্থী রাফিকে সোনাগাজী ইসলামিয়া মাদ্রাসা ক্যাম্পাসে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। ১০ এপ্রিল বুধবার রাতে সাড়ে ৯টায় তার মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় নুসরাতের বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমানের দায়ের করা মামলার তদন্ত করছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।









Leave a reply