পটুয়াখালীতে স্বামীর সামনে স্ত্রীকে গণধর্ষনের অভিযোগে মামলা

|

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় স্বামীর সামনে স্ত্রীকে গণধর্ষনের অভিযোগে আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে স্বামী মোঃ ছিদ্দিক বাদী হয়ে পটুয়াখালী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে এ মামলাটি দায়ের করেন। পরে আদালতের বিজ্ঞ বিচারক নিতাই চন্দ্র রায় সংশ্লিষ্ট থানার ওসিকে এজাহার নেয়ার আদেশ দেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ১৫ এপ্রিল রাতে ছিদ্দিক তার স্ত্রী ও পরিবারের সদস্যদের নিয়ে পাশের এলাকায় খালা হাছিনা বেগমের বাড়ীতে নিমন্ত্রণে যায়। রাতের খাবার শেষ করে ঘুমাতে যাওয়ার প্রস্তুতি নিলে আসামী একই এলাকার মৃত মনু মাঝির ছেলে শাহ আলম, মনির হাওলাদারের ছেলে শাহিন, রবিউল, আল আমিন, আব্দুর রশিদ, শাকিলসহ ১০ থেকে ১২ জন জোর করে ঘরে ঢুকে প্রথমে ছিদ্দিককে মারধর করে তার সামনে স্ত্রীকে গণধর্ষন করে।

ছিদ্দিকের বৃদ্ধা মা-বাবা ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা বাধা দিতে গেলে ধর্ষক দলটি তাদেরও মারধর করে। এক পর্যায়ে আসামীরা ভিকটিমকে ধুলাশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল আকনের বাড়িতে ফেলে চলে যায়। পরে গ্রাম পুলিশ ছিদ্দিকসহ স্থানীয়রা ভিকটিমকে উদ্ধার করে কলাপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখান থেকে তাকে পটুয়াখালী ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে প্রেরন করা হয়।

ধুলাশ্বর ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আনোয়ার ফকির এ প্রসঙ্গে জানান, তার এলাকার আজাহার খলিফার ছেলে মামুন ও তার বন্ধুরা ফোন করে তাকে জানায়, “১৫ এপ্রিল রাতে ছিদ্দিক ও একটি মেয়েকে তারা আটক করেছে। মেয়েটির সাথে ছিদ্দিকের সাথে অবৈধ সর্ম্পক রয়েছে। পরে ছিদ্দিকের কাছে জানতে চাইলে তিনি ইউপি সদস্যকে জানান, মেয়েটি তার বিবাহিত স্ত্রী। এসময় মেয়েটি আমাকে বলেছিল আমার স্বামীকে উল্লেখিত যুবকরা মারধর করেছে। কিন্তু ধর্ষনের ঘটনা আমি আজ শুনলাম।









Leave a reply