কলম্বোয় চার্চের কাছে ফের বিস্ফোরণ

|

রক্তান্ত ইস্টার সানডে’র ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই ফের বিস্ফোরণ ঘটলো শ্রীলঙ্কায়। কলম্বোর সেন্ট অ্যান্টনিস চার্চের কাছে এই বিস্ফোরণ হয়েছে বলে খবর। জানা গিয়েছে, বোমা নিষ্ক্রিয় করার সময় বিস্ফোরণটি ঘটে।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানিয়েছে, বোম্ব ডিসপোজাল স্কোয়াড এবং বিমান বাহিনীর বিশেষ টিম যখন উদ্ধারকৃত বোমা নিষ্ক্রিয় করতে চেষ্টা করছিলেন তখন একটি বড় ধরনের বিস্ফোরণ ঘটে। গতকাল হামলার পরপর অভিযান চালিয়েছে স্থানীয় একটি বাস স্টেশন থেকে ৮৭টি বোমা উদ্ধার করে পুলিশ।

এদিকে ইতিহাসে ভয়াবহ সিরিজ বোমা হামলার জন্য দেশটির একটি উগ্রপন্থি জঙ্গিগোষ্ঠি ‘ন্যাশনাল তাওহিদ জামাত’কে দায়ী করেছে শ্রীলঙ্কা সরকার।

আজ সোমবার লঙ্কান স্বাস্থ্যমন্ত্রী রজিতা সেনারত্নে বলেন, এই গোষ্ঠি আত্মঘাতী হামলাকারীদের দ্বারা ব্যবহার করে সিরিজ হামলা চালিয়েছে। একই সাথে তিনি ইঙ্গিত দেন সংগঠনটির সাথে আন্তর্জাতিক কোনো পক্ষের সংযোগ থাকতে পারে।

তিনি বলেন, আমরা মনে করি না শুধু এদেশে থাকা কিছু লোক এই হামলা চালিয়ে থাকতে পারে। আন্তর্জাতিক সহায়তা ছাড়া এই মাত্রার হামলা সম্ভব নয়।

সোমবার পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৯০ জন। আহত হয়েছেন ৫০০ এর বেশি মানুষ। হামলার পর দেশটির পুলিশ প্রধান এবং পরে প্রধানমন্ত্রী স্বীকার করেন যে, ১০ দিন আগে পুলিশের পক্ষ থেকে গোয়েন্দাদেরকে চার্চে হামলার বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছিল।

এখন সবার দৃষ্টি এই বিষয়টির প্রতি। কেন সরকারের সংস্থাগুলো এত আগে জানার পরও এমন ভয়াবহ হামলা প্রতিরোধে ব্যবস্থা নিতে পারলো না।

টেলিকমিউনিকেশন মন্ত্রী হারিন ফার্নান্দো এক টুইটে লিখেছেন, “কিছু গোয়েন্দা কর্মকর্তা এমন হামলার ব্যাপারে সতর্ক করেছিলেন। সতর্ক করার পরও বিষয়টিকে অবহেলা করে ব্যবস্থা নিতে কেন সময় নেয়া হলো? এ ব্যাপারে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে”।

আরেক ক্যাবিনেট মন্ত্রী মানো গনেশ্যাম বলেন, তার মন্ত্রণালয়ের নিরাপত্তা কর্মকর্তারা সতর্ক করেছিলেন যে, দু’জন আত্মঘাতী হামলাকারী রাজনীতিবিদ এবং ভারতীয় দূতাবাসকে লক্ষ্যবস্তু বানাতে পারেন। কিন্তু এরপরও যথাযথ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়নি।

উল্লেখ্য, এনটিজে হলো শ্রীলঙ্কার মুসলিমদের একটি উগ্রপন্থি গ্রুপ। গত বছর বৌদ্ধ মূর্তি ভাংচুরের সঙ্গে এই গ্রুপটি জড়িত ছিল।









Leave a reply