পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে যৌন হয়রানী মামলায় ২ শিক্ষক গ্রেফতার

|

গাইবান্ধা প্রতিনিধি
গাইবান্ধা সদর উপজেলায় পঞ্চম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে মামলা দায়ের ও এ ঘটনায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সোহেল মিয়া (৪০) ও কোচিং শিক্ষক চান্দু মিয়াকে (৫০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রবিবার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানায় গাইবান্ধা সদর থানা পুলিশ।

গ্রেফতার চান্দু মুন্সি (৫০) ওই বিদ্যালয়ের কোচিং শিক্ষক। চান্দু মুন্সি সদর উপজেলার চক গয়েশপুর গ্রামের মৃত্যু রহিম বকসের ছেলে। এছাড়া সোহেল মিয়া দক্ষিণ কাজলঢোপ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। সোহেল মিয়া সদর উপজেলার নারায়নপুর গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গত ২৫ এপ্রিল সকালে দক্ষিণ কাজলঢোপ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী শিমু আক্তার প্রথম সাময়িক পরীক্ষা দিতে স্কুলে যায়। পরীক্ষা চলাকালে কোচিং শিক্ষক চান্দু মুন্সি অসৎ উদ্দেশ্যে পরীক্ষার হলে প্রবেশ করে। এ সময় চান্দু মুন্সি ওই শিক্ষার্থীর বুকে এবং স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয়। পরে শিক্ষার্থী বাড়িতে এসে ঘটনাটি তার পরিবারকে জানায়। এ ঘটনায শনিবার রাতে ওই ছাত্রীর বাবা সবুজ মিয়া দুইজনকে আসামি করে যৌন হয়রানীর অভিযোগে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রেক্ষিতে অভিযান চালিয়ে আসামি চান্দু মিয়া ও সোহেল মিয়াকে আটক করে পুলিশ।

গাইবান্ধা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খান মো. শাহরিয়ার জানান, মামলার আসামি চান্দু মুন্সি ও সোহেল মিয়াকে দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ছাত্রীকে যৌন হয়রানীর ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলাটি গুরুত্বসহকারে তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন পাঠানো হবে।

এদিকে, এ ঘটনায় বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা ফুঁসে উঠেছেন। গ্রেফতার দুই শিক্ষকের দৃষ্টান্ত শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তারা।









Leave a reply