তেলেঙ্গানায় মোদীর বিরুদ্ধে লড়ছেন ৫০ কৃষক

|

তেলেঙ্গানার ৫০ জন হলুদ কৃষক এবার বারাণসী লোকসভা কেন্দ্র থেকে প্রার্থী হয়েছেন। এই বারাণসী থেকেই নির্বাচনে লড়ছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তেলেঙ্গানা কৃষকদের প্রার্থী হওয়ার কারণও তিনি।

যে সমস্যায় তাঁরা ভুগছেন তা যাতে দেশের মানুষের সামনে আসে তাই নির্বাচনে লড়ছেন তেলেঙ্গানার নিজামাবাদ এলাকার এই কৃষকরা। তাঁদের অনেকেরই বক্তব্য, আমরা কারও বিরোধিতা করতে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছি না। আমরা শুধু আমাদের নিজেদের সমস্যার কথা তুলে ধরতে চাই। কৃষকদের দাবি হলুদ কৃষকদের কুইন্টাল প্রতি ন্যূনতম ১৫ হাজার টাকার সহায়ক মূল্য দেওয়া হোক। সংবাদ সংস্থা এএনআইকে কৃষকদের কয়েকজন জানিয়েছেন, বিজেপি এবং তার আগে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ সরকার তাদের দাবি দাওয়া মানেনি। আর তাই প্রতিবাদের এই পথ বেছে নিয়েছেন কৃষকরা।

শুধু তেলেঙ্গানা নয় গোটা দেশের হলুদ কৃষকদের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য না থাকায় সমস্যায় পড়ছেন। গত চার বছরে এই সমস্যা বড় আকার ধারণ করেছে। এরই মধ্যে চলতি বছরে হলুদের দাম কুইন্টাল প্রতি এক ধাক্কায় অনেকটাই পড়েছে। আগে দাম ছিল ৫ হাজার ২০০ টাকা এখন তা কমে হয়েছে ৩ হাজার ২০০ টাকা। মানে কুইন্টাল প্রতি ২ হাজার টাকা করে ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে কৃষকদের।

এর আগে গত ২৬ তারিখ মনোনয়নপত্র জমা দেন নরেন্দ্র মোদী। শরিক নেতাদের উপস্থিতিতে মনোনয়নপত্র জমা দেন মোদী। সেদিন উপস্থিত ছিলেন শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে, শিরোমণি অকালি দলের প্রধান প্রকাশ সিং বাদল, বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার সহ কয়েকজন।বারাণসীতে মোদীর বিরুদ্ধে কংগ্রেস প্রার্থী করেছে অজয় রাইকে।

সমাজবাদী পার্টি এবং বহুজন সমাজপার্টির জোট প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন শালিনী যাদব। একটা সময় শোনা গিয়েছিল কংগ্রেস এই কেন্দ্র থেকে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে প্রার্থী করবে। কিন্তু শেষমেশ প্রিয়াঙ্কা প্রার্থী হননি। ২০১৪ সালে এই অজয় রাই ভোটে দাঁড়িয়ে ছিলেন। আবার তাঁর উপরই আস্থা রাখল কংগ্রেস। এই কেন্দ্রে দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন আপ সুপ্রিমো অরবিন্দ কেজরিওয়াল এবং তৃতীয় স্থানে ছিলেন অজয়।









Leave a reply