গ্রামীণফোনের বকেয়া সাড়ে ১২ হাজার কোটি টাকা, কড়া পদক্ষেপ নিচ্ছে বিটিআরসি

|

মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোনের কাছে নিরীক্ষা বাবদ পাওনা ১২ হাজার ৫৭৯ কোটি টাকা আদায়ে এবার কঠোর অবস্থান নিচ্ছে সরকার। নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি’র দাবি, নানা অজুহাতে সরকারের পাওনাদি পরিশোধে গড়িমসি করে প্রতিষ্ঠানটির সুদসহ বকেয়ার পরিমাণ আরো বাড়ছে।

এমন বাস্তবতায় দ্রুত পাওনা আদায়ে আইন অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছে সংস্থাটি। এ জন্য আইন মেনে তাদের সেবা দানের এনওসি অবৈধ বা বন্ধ করে দেয়া হতে পারে। একই সঙ্গে কল ব্লক করে দেয়া সহ লাইসেন্স এর বিষয়ে শোকজ করারও সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে বিটিআরসি।

এ বিষয়ে আজ সোমবার নিজ কার্যালয়ে টেলিকম রিপোর্টার্স নেটওয়ার্ক-টিআরএনবি’র সাথে মতবিনিময়কালে বিটিআরিসি’র চেয়ারম্যান জহরুল হক বলেছেন, গ্রামীণ ফোনের কাছে নিরীক্ষা বাবদ পাওনা সঠিক অডিট নিস্পত্তির মাধ্যমেই দাবি করা হয়েছে। এক্ষেত্রে গ্রামীণফোনের সব বক্তব্য গ্রহণ করা হয়েছে। সুতরাং এই প্রতিষ্ঠানটির কাছে সরকারের বিপুল পরিমাণ পাওনা মওকুফ করার কোন সুযোগ বিটিআরসি’র নেই। বরং পাওনা আদায়ে বিটিআরসি আইন অনুযায়ী সব ধরণের ব্যবস্থা নেবে।

মোবাইল টাওয়ারের রেডিয়েশন সংক্রান্ত হাইকোর্টের নির্দেশনাকে ইতিবাচক বলে মনে করছে বিটিআরসি। টাওয়ার সংখ্যা কমাতে অপারেটর এবং টাওয়ার ব্যবস্থাপনার লাইসেন্স প্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলো ঐক্যমতে পৌঁছাতে পারছে না বলে জানান বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান। সংকট নিরসনে বিটিআরসি’র নিজস্ব উদ্যোগে আইন অনুযায়ী চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে বলে জানান তিনি।

গ্রাহক স্বার্থ রক্ষা করেই সিগনিফিকেন্ট মার্কেট পাওয়ার বা এসএমপি কার্যকরের কথা জানায় বিটিআরসি।









Leave a reply