ধর্ষণ নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদ করায় ভুক্তভোগীর চাচাকে কুপিয়ে হত্যা

|

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি
মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের সাতগাঁও এলাকায় স্কুলছাত্রী ধর্ষণের ঘটনার জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় ভূক্তভোগীর চাচা নিহত হয়েছেন। এ সময় গুরুতর আহত হয়েছেন ছাত্রীর পিতা।
পুলিশ ও ভুক্তভোগীর পরিবারসূত্রে জানা যায়, গত ৩০ এপ্রিল শ্রীমঙ্গল উপজেলার সাতগাঁও এলাকার পশ্চিম লইয়ারকুল গ্রামে নয় বছর বয়সের এক স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়। ঘটনার পরপরই পুলিশ ধর্ষককে গ্রেফতার করে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে গতকাল বুধবার রাতে একই গ্রামের আব্দুল আহাদ ধর্ষকের পক্ষ নিয়ে ভুক্তভোগীর পিতা রহমান মিয়া ও চাচা সিরাজ মিয়ার সামনে ঘটনা নিয়ে কটূক্তি করে। এসময় তারা প্রতিবাদ করলে বাকবিতন্ডা বাধে। এক পর্যায়ে আব্দুল আহাদ দলবলসহ দেশী অস্ত্র নিয়ে রহমান মিয়া ও সিরাজ মিয়ার উপর হামলা করে দু’জনকে কুপিয়ে আহত করে। পরে পরিবার ও এলাকাবাসী গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক সিরাজ মিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন। আর রহমান মিয়ার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি কেএম নজরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আজ সকালে পুলিশ অভিযান চালিয়ে প্রধান অযিুক্ত আব্দুল আহাদকে আটক করেছে।

গত ৩০ এপ্রিল মঙ্গলবার দুপুরে চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ুয়া শিশুটি বাড়ির পাশে খেলছিলো। এসময় পাশের গ্রামের যুবক জামাল মিয়া শিশুটিকে পার্শবতী চা বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করে। ঘটনার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই পুলিশ জামাল মিয়াকে গ্রেফতার করে।









Leave a reply