নোয়াখালীতে শিশু ও স্কুলছাত্রী নিহত, বিধ্বস্ত শতাধিক বাড়িঘর

|

নোয়াখালীর সূর্বণচর, হাতিয়া, কোম্পানীগঞ্জ ও সদর উপজেলাসহ বিভিন্ন এলাকায় আঘাত হেনেছে ঘূর্ণিঝড় ফণী। এর মধ্যে উপকূলীয় অঞ্চল গুলোতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। কয়েক মিনিটের ঘূর্ণিঝড়ে সুবর্ণচর উপজেলার চর আমান উল্যাহ পুর ইউনিয়নে বসত ঘরের চাপা পড়ে ইসমাইল হোসেন নামের দু’বছরের এক শিশু নিহত হয়েছে। এছাড়াও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চর কাঁকড়া ইউনিয়নে ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী ঝুমুর গাছ চাপায় নিহত হয়েছেন। বিভিন্ন স্থানে অন্তত অর্ধশতাধিক আহত ও শতাধিক বাড়ীঘর বিধ্বস্ত হয়েছে।

নিহত ইসমাইল সুবর্নচরের চর আমানউল্যা ইউপির আব্দুর রহমানের ছেলে। আহতদের নাম পরিচয় জানা যায়নি। তাদের মধ্যে অনেককে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সন্ধ্যা থেকে জেলায় বৃষ্টি ও বাতাস শুরু হয়। গভীররাতে হঠাৎ জেলার সুবর্নচর ও সদর উপজেলার কয়েকটি স্থানে আঘাত করে ঘূর্ণিঝড় । কয়েক মিনিটের ঘূর্ণিতে বিধ্বস্ত হয় দু’টি উপজেলার শতাধিক কাঁচা বাড়ি ঘর। এসময় চর আমানউল্যা এলাকায় একটি ঘর ভেঙে পড়লে মায়ে কোলে থাকা অবস্থায় চাপা পড়ে শিশু ইসমাইল নিহত হয়। এছাড়াও বিভিন্ন স্থানে অন্তত ২৫জন আহত হয়েছে।

একজন নিহত হওয়ার বিষয়টি স্থানীয় চর আমানউল্লাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বেলায়েত হোসেন নিশ্চিত করেছেন।









Leave a reply