ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছুরিকাঘাতে প্রেমিক যুগলের আত্মহত্যার চেষ্টা

|

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:

পারিবারিকভাবে সম্পর্ক মেনে না নেওয়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রেমিক যুগল ছুরিকাঘাতে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। শুক্রবার মধ্য রাতে জেলা শহরের সদর হাসপাতালের নার্স কোয়ার্টারে এই ঘটনা ঘটলেও শনিবার সকালের পর বিষয়টি জানাজানি হয়।

প্রেমিক যুগল হলেন, ওই হাসপাতালের সিনিয়র নার্স সুইটি সূত্রধর ও তার প্রেমিক তানভীর হোসেন সজীব।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, নার্স সুইটি ও সজীব দীর্ঘদিন ধরে একে অপরকে পছন্দ করেন। একপর্যায়ে তাদের পছন্দের বিষয়টি দুইজনের পরিবারকে জানান। কিন্তু দু’জনেরই পরিবার দুই ধর্মের হওয়ার কারণে বিষয়টি মেনে না নেওয়ায় শুক্রবার রাতে সুইটি সজীবকে ফোন করে তার কোয়ার্টারে আসতে বলেন। সজীব এলে তারা আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নেন। প্রথমে ধারালো ছুরি দিয়ে সজীব সুইটিকে একাধিক ছুরিকাঘাত করেন। পরে তিনি ছুরি দিয়ে নিজেই গলায় আঘাত করেন। পরবর্তীতে খবর পেয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুমন চন্দ্র নাথ ও সদর থানা পুলিশে ১নং ফাঁড়ি ইনর্চাজ পরিদর্শক মোঃ. আতিকুর রহমান এসে তাদের উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। তবে এসময় দুইজনের চিৎকারে এই কোয়ার্টারে থাকা অন্য নার্সরা এগিয়ে না আসায় বিষয়টি রহস্যজনক ভাবে দেখছে পুলিশ।

ঘটনার খবর পেয়ে রাতেই ব্রাহ্মণবাড়িয়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আলমগীর হোসেন, জেলা স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ’র সভাপতি ডা. আবু সাইদ সহ অন্যরা তাদের দেখতে আসেন। তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় দায়িত্বরত চিকিৎসক তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরের পরামর্শ দেন।

রাতে এই ঘটনার পর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. শওকত হোসেনসহ হাসপাতাল শীর্ষ কর্মকর্তাদের রাতে হাসপাতালে না আসায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

এই ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আলমগীর হোসেন জানান প্রেমিক যুগলের আত্মহত্যা চেষ্টার খবর পেয়ে আমরা হাসপাতালে এসেছি। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। পাশাপাশি উভয় এর বক্তব্য পেলে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।









Leave a reply