দুর্বল হয়ে আঘাত হানলেও ফণি’র তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত অনেক এলাকা

|

দুর্বল হয়ে আঘাত হানলেও ফণি’র তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে অনেক এলাকা। অন্যদিকে, বেড়িবাঁধের ভাঙন নিয়ে দুশ্চিন্তায় বাগেরহাট-সাতক্ষীরার মানুষ।

ভোলার সদর উপজেলার দক্ষিণ দীঘলদি ইউনিয়নের শতাধিক বাড়িঘর আর স্থাপনা লণ্ডভণ্ড ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতে। লক্ষ্মীপুরের রামগতির কয়েকটি ইউনিয়নের ওপরও চলে তাণ্ডবলীলা। চাঁদপুর সদরের রাজরাজেশ্বর, হাইমচর ও মতলবেও শতাধিক বাড়িঘর বিধ্বস্ত হয় ফণির আঘাতে। দুর্যোগ কাটিয়ে ঘরে ফিরলেও স্বস্তি নেই বাগেরহাট আর সাতক্ষীরা উপকূলের মানুষের। ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ প্রতিনিয়ত চোখ রাঙানি দিচ্ছে নতুন দুর্যোগের। পুরনো বাঁধ সংস্কার না হওয়া আর ফণিতে ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধের পাড়ের গ্রামগুলোয় নির্ঘুম রাত কাটছে মানুষের।









Leave a reply