নর্থ বেঙ্গল সুগার মিলের গণহত্যা দিবস আজ

|

স্টাফ রিপোর্টার, নাটোর

আজ ৫ মে নাটোরের লালপুরের নর্থ বেঙ্গল সুগার মিলের গণহত্যা দিবস। ১৯৭১ সালের এই দিনে পাকসেনা ও তাদের দোসর রাজাকাররা নাটোরের গোপালপুরের নর্থ বেঙ্গল দখল করে ফেলে। পরবর্তীতে সে সময়ের মিলের জিএম লেফট্যানেন্ট আনোয়ারুল আজিমসহ মিলের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ অন্তত দেড়শ’ জনকে মিলের অফিসার্স কোয়ার্টারের পুকুরঘাটে নিয়ে সারিবদ্ধভাবে দাঁড় করায় হানাদারের দল।

এরপর একসঙ্গে গর্জে ওঠে ঘাতকদের ১৩টি মেশিনগান। একযোগে দেড়শ’ জন মানুষের গগনবিদারী চিৎকারে আকাশ বাতাস প্রকম্পিত হয়। মুহূর্তের মধ্যে পুকুরঘাট লাশের স্তূপে পরিণত হয়। মৃত্যু নিশ্চিত করতে বেয়নেট দিয়ে খুচিয়ে খুচিয়ে লাশগুলোকে পুকুরের পানির মধ্যে গড়িয়ে দেয় পাকিস্তানি সেনারা।

গুলিবিদ্ধ ২০০ জনের মধ্যে সৌভাগ্যক্রমে মাত্র চারজন- আবদুল জলিল শিকদার, খোরশেদ আলম, আবুল হোসেইন, ইমাদ উদ্দিন এবং ইঞ্জিল সর্দার বাঁচতে সক্ষম হন। স্বাধীনতার পর শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে ওই পুকুরটির নামকরণ করা হয় শহীদ সাগর। আর লেফট্যান্যান্ট আনোয়ারুল আজিমের নামে গোপালপুর রেল স্টেশনটির নামকরণ করা হয় আজিমনগর। স্বাধীনতার পর থেকে প্রতি বছর এই দিনটিকে যথাযোগ্য মর্যাদায় নর্থ বেঙ্গল সুগার মিলের গণহত্যা দিবস হিসাবে পালন করা হয় ।









Leave a reply