পাবনায় অতিরিক্ত মদ পানে দু’জনের মৃত্যু

|

পাবনা জেলা-যুগান্তর

পাবনার ফরিদপুর পৌর সদরে অতিরিক্ত মদ পানে বিষক্রিয়ায় দু’জনের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার রাতে একজন এবং শনিবার রাতে অপরজনের মৃত্যু হয়।

তারা হলেন- ফরিদপুর পৌর সদরের দক্ষিণ টিয়ারপাড়া মহল্লার মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে ফরিদুল ইসলাম (২৫) ও রাউত নাগদাপাড়া মহল্লার আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে জামাল হোসেন (৪০)। এ ঘটনায় বিষাক্ত মদ বিক্রির অভিযোগে তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানান, গত বৃহস্পতিবার ফরিদপুর পৌর সদরের দক্ষিণ টিয়ারপাড়া মহল্লার মোফাজ্জল হোসেনের বাড়িতে একটি অনুষ্ঠান ছিল। এদিন রাতে অনুষ্ঠান শেষে ফরিদুল, জামালসহ বেশ কয়েকজন দেশি চোলাই মদ পান করেন। এর ফলে বিষক্রিয়ায় অসুস্থ হয়ে পড়ায় শুক্রবার রাত আটটার দিকে স্বজনরা জামাল হোসেন ও ফরিদুল ইসলামসহ পাঁচজনকে ফরিদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। এ সময় চিকিৎসক জামাল হোসেনকে মৃত ঘোষণা করেন। বাকিদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হওয়ায় ফরিদুল ইসলামকে শনিবার পাবনা জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। পাবনায় নিয়ে যাবার পথে তার মৃত্যু হয়।

ফরিদপুর থানার ওসি আবুল কাশেম আজাদ জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, অতিরিক্ত মদ্যপানের ফলে বিষক্রিয়ায় তাদের মৃত্যু হয়েছে। জামাল হোসেনের লাশ নিয়ে স্বজনরা গোপনে দাফন করেছে। তখন বিষয়টি জানতে পারেনি পুলিশ। শনিবার রাতে ফরিদুলের মৃত্যুর পর বিষয়টি জানাজানি হয়। ফরিদুলের লাশ উদ্ধার করে রোববার ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ওসি আরও জানান, দু’জন মৃত্যুর ঘটনায় শনিবার রাতে একটি মামলা হয়েছে। এদিন রাতেই অভিযান চালিয়ে বিষাক্ত মদ বিক্রির অভিযোগে জিন্নাহ, মহব্বত ও আজিম নামের তিনজনকে আটক করা হয়। রোববার তাদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

ফরিদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. লুলু আল মারজান জানান, অতিরিক্ত মদ পানের ফলে বিষক্রিয়ায় দু’জনের মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।









Leave a reply