গর্ভপাতবিরোধী আইন পাশের প্রতিবাদে ‘সেক্স স্ট্রাইকে’র আহ্বানে ব্যাপক সাড়া

|

হলিউড অভিনেত্রী ও মিটু আন্দোলনের অন্যতম কর্মী অ্যালিসা মিলানো নারীদেরকে ‘সেক্স স্ট্রাইক’ করার আহ্বান জানিয়েছেন। ‘সেক্স স্ট্রাইক’ হলো নির্দিষ্ট দাবি না মানা পর্যন্ত নিজের সঙ্গীর সাথে শারিরীক মেলামেশা বন্ধ রাখা।

যুক্তরাষ্ট্রে জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যে সম্প্রতি গর্ভপাতবিরোধী আইন পাশের প্রতিবাদে সেক্স স্ট্রাইকের আহ্বান জানান অ্যালিসা। যতক্ষণ পর্যন্ত এই আইন বাতিল না হবে ততক্ষণ পর্যন্ত যৌন সংষর্গ থেকে বিরত থাকতে তার এই আহ্বান।

টুইটারে অ্যালিসা লিখেছেন, “যতক্ষণ পর্যন্ত নারীর শরীরের ওপর তার নিজের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠিত না হবে ততক্ষণ পর্যন্ত আমরা গর্ভবতী হওয়ার ঝুঁকি নিতে পারি না।”

অ্যালিসার এমন অবস্থানে টুইটার ব্যবহারকারীদের মধ্যে বিভাজন দেখা দিয়েছে। কেউ তার পক্ষে অবস্থান নিচ্ছেন আবার কেউ তার বক্তব্যকে ‘খোঁড়াযুক্তি’ বলেও অভিহিত করছেন। তবে যুক্তরাষ্ট্রে টুইটারে #SexStrike হ্যাশট্যাগটি ট্রেন্ডিং হয়েছে।

গত মঙ্গলবার জর্জিয়া গভর্নরের স্বাক্ষরে গৃহীত গর্ভপাতবিরোধী আইনটি কার্যকর হবে আগামী ১ জানুয়ারি থেকে। আইনটিতে বলা হয়েছে, মানব ভ্রুণের মধ্যে হৃদযন্ত্রের আওয়াজ (হার্টবিট) পাওয়া গেলেই আর সেটিকে গর্ভপাতের মাধ্যমে ধ্বংস করা যাবে না। সাধারণত গর্ভধারণের ৬ সপ্তাহ পরে ভ্রুণের হার্টবিট অনুভব করা যায়।

সেক্স স্ট্রাইকের পক্ষে ইতোমধ্যে আরও অনেক নারীবাদী ব্যক্তিত্ব টুইট করেছেন। তবে বিপক্ষেও অবস্থান নিয়েছেন অনেকে। তাদের বক্তব্য, সেক্স স্ট্রাইকের সমর্থকদের অবস্থান সঠিক হলে ধরে নিতে হবে নারী-পুরুষের যৌন সংষর্গের বিষয়টি নারীর পক্ষ থেকে পুরুষের জন্য বিশেষ কোনো অনুদান। বাস্তবে তা নয়। এটি উভয়ের নিজেরই জন্যই প্রয়োজনীয়, কারোরই দান-অনুদানের বিষয় নয় এটি।









Leave a reply