ঠাকুরাকোণা-কলমাকান্দা ২০ কিলোমিটার সড়কের অবস্থাই এমন

|

কামাল হোসাইন,স্টাফ রির্পোটার, নেত্রকোণা:

নেত্রকোণার ঠাকুরাকোনা-কলমাকান্দা সড়কের যোগাযোগের বেহাল অবস্থা বিরাজ করছে। চরম দূর্ভোগের শিকার হচ্ছে এ অঞ্চলের মানুষ। ঈদকে সামনে রেখে সড়কটিতে জনদুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করতে পারে। বাড়তে পারে দুর্ঘটনাও।

স্থানীয়দের অভিযোগ, নেত্রকোণায় ঠাকুরাকোণা-কলমাকান্দা সড়কটি বন্যায় বিভিন্ন অংশে ভেঙ্গে যায়। বারবার সংস্কার কাজ হলেও কাজের অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে কিছু দিন যেতে না যেতেই ২০ কিলোমিটার সড়কের পুরোটাই ভেঙ্গে খানাখন্দকে পরিণত হয়েছে।

গত ৫ বছরেও সড়কটি আর সংস্কার করা হয়নি। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চলাচল করলেও এখন সারা দেশের সাথে যোগাযোগ প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে। অনেকেই বিশ কিলোমিটার ঘুরে বিকল্প সড়ক ব্যবহার করছেন। ফলে সময় ও অর্থের অপচয় বাড়ছে। কলমাকান্দা বাসষ্ট্যান্ড হতে বাহাদুরকান্দা, গুতুরা বাজার হতে দশধার পর্যন্ত সড়কের অবস্থা আরো খারাপ।

স্থানীয় সড়ক বিভাগ প্রতিবছর ২/১ বার সড়কের ভাঙ্গা মেরামতের নামে বিপুল অংকের বরাদ্দে এনে দায় সারছে। সড়কে ছোট-বড় খানাখন্দ তৈরী হওয়ায় তা চলাচরের অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে। ভুক্তভোগী স্থানীয় বাসিন্দারা দ্রুত এই সড়কটি সংস্কারের দাবী জানিযেছেন।

হিরাকান্দা গ্রামের জালাল আকন্দ,পাবই গ্রামের আলী উসমান এর ছেলে মোজাম্মেল হক, একই গ্রামের মৃত সুরুজ আলীর ছেলে ডিপ্টি মিয়া, রায়পুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও নিশ্চিন্তপুর গ্রামের বাসিন্দা সুরুজ ফকির বলেন, রাস্তাটি ৫/৬ বছর আগে নামকাওয়াস্তে মেরামত করা হয়েছিলো। বেশী দিন টিকে নাই।

এদিকে স্থানীয় সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী দিদারুর আলম তরফদার বলেছেন, সড়কটির জন্য তিনশো দশ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে। এবছর একশো কোটি টাকা বরাদ্দ পেয়েছি। ল্যান্ড সার্ভে চলছে। আর ঈদে সাময়িক মেইনটেন্স করে চলাচলের উপোযোগী করে দেয়া হবে।









Leave a reply