খালেদার জিয়ার বিচারে এবার কেরানীগঞ্জ কারাগারে বসছে আদালত

|

নিরাপত্তা কারণ দেখিয়ে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন সড়কের পুরনো কারাগারের অস্থায়ী আদালতের কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। আদালতের নতুন কার্যক্রম চলবে কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারে।

ফলে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মামলাগুলো এখন থেকে চলবে সেখানে। রোববার এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে আইন মন্ত্রানালয়।

এ প্রসঙ্গে দুর্নীতি দমন কমিশনের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল বলেন, এতে বিচারিক প্রক্রিয়া তরান্বিত হবে। কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে নবনির্মিত ২ নম্বর ভবনের অস্থায়ী আদালতে নাইকো দুর্নীতি মামলাসহ অন্য মামলাগুলোর বিচার হবে।

নিরাপত্তার স্বার্থে কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে নবনির্মিত ২ নম্বর ভবনের অস্থায়ী আদালতে মামলাগুলোর বিচারিক কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হবে।

নাইকো দুর্নীতি মামলা ছাড়াও রাজধানীর দারুস সালাম থানার নাশকতার ৮ মামলা, যাত্রাবাড়ী এলাকায় বাসে অগ্নিকাণ্ডের মামলা এবং মানহানির অভিযোগে করা তিনটি মামলার বিচারে ঢাকার জজ আদালতের একটি এজলাস বসবে কেরানীগঞ্জের কারাগারে। এগুলো ছাড়া আরও কয়েকটি মামলার বিচারও ওই আদালতে হবে বলে জানান তিনি।

তবে, এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়েছে বিএনপি। দলটির নেতা এবং আইনজীবীরা বলছেন, আদালত এখন কারাগার থেকে কারাগারে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এতে প্রশ্নবিদ্ধ হবে বিচার।

২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণার পর পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে অবস্থিত পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয় খালেদা জিয়াকে। সেপ্টেম্বরে সেখানে স্থানান্তর করা হয় বিশেষ আদালত।

দুর্নীতির দুই মামলায় দণ্ডিত বিএনপি চেয়ারপারসন এখন চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে রয়েছেন।

যমুনা অনলাইন: আরএস









Leave a reply