আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণার জেরে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে তালা, পাল্টাপাল্টি অবস্থান

|

বগুড়া ব্যুরো:

বগুড়া জেলা বিএনপির আহ্ববায়ক কমিটি ঘোষণাকে কেন্দ্র করে দলীয় কার্যালয়ে দুই গ্রুপের পাল্টাপাল্টি অবস্থান, কার্যালয়ে তালা ঝোলানো ও আহ্বায়কের কুশপুতুল পোড়ানোর ঘটনা ঘটেছে। বুধবার রাত ৮টার পর থেকে রাত সাড়ে ১১টা পর্যন্ত জেলা বিএনপির দুই পক্ষ কার্যালয়ে অবস্থান নিলে এসব ঘটনা ঘটে।

বুধবার বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-দফতার সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয় সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মোহাম্মদ সিরাজকে আহ্বায়ক করে বগুড়া জেলা বিএনপির ৩১ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটির অনুমোদন দেয়া হয়েছে। রাত সাড়ে ৮টার দিকে জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের বহিষ্কৃত সভাপতি শাহ্ মেহেদী হাসান হিমু ও জাসাস জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন পশারী হিরুর নেতৃত্ব বিএনপি নেতাকর্মীরা দলীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেন। তারা দলীয় কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে এবং আহ্বায়ক সিরাজকে ‘সংস্কারপন্হী নেতা’ উল্লেখ করে নতুন কমিটির বিরুদ্ধে স্লোগান দেন। পরে তারা সিরাজের কুশপুতুলও দাহ করেন।

এ ঘটনার ঘণ্টা দুয়েক পর নতুন কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সাইফুল ইসলাম ও নতুন কমিটির অন্তত ১০ জন সদস্যের নেতৃত্বে বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের কয়েকশ নেতাকর্মী দলীয় কার্যালয়ে আসেন। তারা অন্য পক্ষের দেয়া তালা ভেঙে কার্যালয়ে প্রবেশ করেন।

পরে যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানান, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানের অনুমোদিত এই আহ্বায়ক কমিটিতে জায়গা না পেয়ে আগের কমিটির কিছু দলীয়নামধারী ব্যক্তি বিতর্ক তৈরির চেষ্টা করছে। এরা আওয়ামী লীগের এজেন্ট হয়ে দলীয় চেয়ারপারসনের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। এটি দলীয় কর্মকাণ্ডে কোনো বাধা হয়ে দাঁড়াবে না বলেও তিনি জানান।

২৫ এপ্রিল কেন্দ্রীয় বিএনপি জেলা বিএনপির কমিটি বিলোপ করে আহ্বায়ক কমিটির প্রস্তাবনা চাওয়ার পরই মূলত জেলা বিএনপির দুই পক্ষের দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে আসে। ২৯ এপ্রিল বিএনপির দুটি অংশ পৃথক দুটি আহ্বায়ক কমিটির প্রস্তাবনা পাঠায় কেন্দ্রে। পরে ৪ মে কেন্দ্রীয় কমিটি জেলা বিএনপির কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে। বিলুপ্তির ১০ দিন পর আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণার পর আবারও প্রকাশ্য দ্বন্দ্বে মুখোমুখি জেলা বিএনপির এই দুই পক্ষ।









Leave a reply