প্রথমবারের মতো কোন টুর্নামেন্টে বাংলাদেশে শিরোপা

|

প্রথমবারের মতো কোন ত্রিদেশীয় সিরিজ বা টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতলো বাংলাদেশ। আয়ারল্যান্ডে বৃষ্টিবিঘ্নিত ফাইনালে উইন্ডিজকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে মাশরাফী বাহিনী। ২৪ ওভারে ১ উইকেটে ১৫২ করে উইন্ডিজ। বৃষ্টি আইনে টাইগারদের লক্ষ্য দাড়ায় ২১০ রান। পাহাড় সমান রান তাড়া করতে নেমে সৌম্য সরকার আর মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের ঝড়ো ফিফটিতে ৭ বল হাতে রেখেই অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয় বাংলাদেশ।

ওভার প্রতি প্রায় রান ১০’র উপর। সবকিছু চলছিলো ঠিকঠাক। খানিকটা সময় নিয়ে দারুন কিছুর আভাস ছিলো তামিমের ব্যাটে। কিন্তু, দলীয় ৫৯ রানেই খেই হারালেন তামিম। সাকিবের জায়গায় ওয়ানডাউনে নেমেও ব্যাডপ্যাচ কাটাতে পারেননি সাব্বির।

ক্রিজের অন্যপ্রান্তে অবশ্য তান্ডব থামাননি সৌম্য সরকার। মুশফিককে সঙ্গে নিয়ে হোল্ডার-গ্যাব্রিয়েলদের নিয়ে রীতিমতো নিষ্ঠুর ছেলে-খেলা করেছেন এই বাঁ-হাতি। মাত্র ২৭ বলে তুলে নেন ফিফটি।

৪১ বলে ৬৬ রানের ইনিংস খেলে সৌম্য যখন আউট হন বাংলাদেশের স্কোর তখন ১০৯ রান। ততোক্ষনে জয়ের ভীত পেয়ে গেছে মাশরাফীর দল। ১২.৩ ওভারে দরকার ১০১। চোখ ধাঁধানো সব শটে কাজটা আরেকটু এগিয়ে দেন মুশফিকুর রহিম। ২২ বলে ৩৬ রান করা মুশি কাটা পড়েন পল রেনল্ডসের বাজে সিদ্ধান্তে।

এর আগে টানা তৃতীয় ওয়ানডে ফাইনালে ইনজুরিতে পড়া সাকিবকে ছাড়া মাঠে নামে বাংলাদেশ। একাদশে তাই ৪ পরিবর্তন।

তবে, মালাহাইডে বল হাতে সাফল্য পায়নি বাংলাদেশ। বৃষ্টির বাধায় ম্যাচ বন্ধ হওয়ার আগে ২০.১ ওভারে বিনা উইকেটে ১৩১ রান তুলে ফেলে উইন্ডিজ। সিরিজে ২ সেঞ্চুরির পর ২য় হাফসেঞ্চুরিও পান শেই হোপ। হাফসেঞ্চুরি তুলে নিয়েছিলেন সুনীল অ্যামব্রিসও।

বৃষ্টিতে ঘন্টা চারেক ম্যাচ বন্ধ থাকার পর বাকি ৩.৫ ওভার ব্যাটিংয়ের সুযোগ পায় ক্যারিবিয়ানরা। টাইগারদের নিয়ন্ত্রীত বোলিংয়ে যোগ হয় মাত্র ২১। একমাত্র উইকেট মিরাজের। ৭৪ করা শেই হোপকে তুলে নেন মেহেদী মিরাজ।

২৪ বলে ৫২ রানের ইনিংসে ম্যাচ সেরা হয়েছেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত।









Leave a reply