৫০০ ছোঁয়ার দৌঁড়

|

মুরশিদুজ্জামান হিমু

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট আসার আগে কে ভেবেছিল, ৫০ ওভারের ম্যাচে হরহামেশাই সাড়ে তিনশ-চারশ রান হবে? প্রতিপক্ষ দল তা চেজও করবে? হয়ত ভাবেন নি অনেকে। কিন্তু আজকাল হচ্ছে তাই। ধরুণ, অস্ট্রেলিয়া চারশ’র কাছাকাছি করে ফেলেছে। রাত হয়ে গেছে বলে ইংল্যান্ডের ইনিংস দেখলেন না। সকালে উঠে রেজাল্ট দেখবেন ইংলিশরা জিতে গেছে এক ওভার হাতে রেখেই। এমনই হচ্ছে আজকাল।

২০১৮-তে ইংল্যান্ডের নটিংহ্যামশায়ারের টেন্টব্রিজের ম্যাচটির কথাই ধরুণ। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৪৮১ করেছিল ইংল্যান্ড! ২০১৬ সালে ইংলিশদেরই করা ৪৪৪ বা ২০১৫’তে ভারতের বিপক্ষে দক্ষিণ আফ্রিকার ৪৩৮ রান। এসবকে তো রানবন্যা বলাই যায়। কে জানে এ বিশ্বকাপে কী হতে চলেছে? তবে, সকালে সূর্য উঠলে যেমন অনুমান করা যায় কেমন যাবে দিনটি; তেমনটি সবশেষ ইংল্যান্ড-পাকিস্তান সিরিজ দেখেও অনুমান করাই যায় এবারের বিশ্ব আসর ‘আইসিসি ওয়ার্ল্ড কাপ-২০১৯’ এ হবে রানের ছড়াছড়ি। হয়ত কোনো দল ছাড়িয়ে যাবে ৫০০’র ল্যান্ডমার্ক-ও।

অনলাইনে এ নিয়ে বিস্তর লেখালেখি চলছে। কেউ কেউ বলছেন, দক্ষিণ আফ্রিকা, ইংল্যান্ড আর ভারত এবার ছুঁয়ে ফেলতে পারে ৫০০’কে। অসম্ভব মনে হচ্ছে? চলুন, পরিসংখ্যান দিয়ে যৌক্তিকতা বিচার করি।

দক্ষিণ আফ্রিকা ৫০০ রান করতে পারবে, এমন মনে হবার পেছনে যুক্তিও শক্ত। কারণ প্রোটিয়ারা ৪০০ পেরিয়েছে এ পর্যন্ত ছয় বার। তারাই প্রথম দল, যারা দেখিয়েছে চারশ’র বেশি রানের মতো ‘অসাধ্য’কেও টপকে ম্যাচ জেতা যায়। এছাড়া বরাবরই ওয়ানডেতে প্রোটিয়ারা বেশ শক্তিশালী দল। যে একাদশে হাশিম আমলা, ডু প্লেসি, মিলার, মার্করামরা আছে, তারা তো প্রতিপক্ষের বোলারদের নাকানিচুবানি খাওয়াবেনই। আর এই দলে যদি এবি ডি ভিলিয়ার্স থাকতেন, সোনায়-সোহাগা বোধহয় বলতেই হতো তাদের।

ইংল্যান্ড যে ৫০০’কে ছুঁতে মুখিয়ে আছে, তা নিশ্চয়ই বলার অপেক্ষা রাখে না। তাদের সাম্প্রতিক ফর্ম বিশ্বকাপের ট্রফিতে এক হাত দিয়েই রেখেছে। ৪৮১ যেহেতু করেই ফেলেছিল তারা, ৫০০ পেরোতে আর কি? আবার দলে যখন মরগান, বেয়ারেস্টো, জেসন রয়, বাটলার বা স্টোকসের মতো ব্যাটসম্যানরা রয়েছেন। তারওপর এবার হোম কন্ডিশন। সবকিছু মিলে এবার ইতিহাস যে তারা করে ফেলতে পারে, তা আশা করাই যায়।

৫০০ করার রেসে অনেকটাই এগিয়ে টিম ইন্ডিয়া। তারা তো ৩০০ প্লাস রানকে রীতিমত ডালভাত বানিয়ে ফেলেছে। ক্রিকেট ইতিহাসে তারাই প্রথম দল, যারা তিন শতাধিক রান করেছে একশ’রও বেশি বার! আর চারশ’র ঘর টপকেছে ৫ বার। এমন পরিসংখ্যান যখন পকেটে নিয়ে ঘোরে কোন দল, পাঁচশ রান তো তাদের আলমিরাতেই মানায়। তারওপর যখন দলে ভিরাট, ধোনি, শিখর, রোহিত, পান্ডিয়াদের মতো মারকুটেরা থাকে, তখন সূর্যটা তো উঁকি তাদের আকাশেই দেয়ার কথা।

সম্প্রতি ফক্স ক্রিকেটের একটি অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন ১৯৯৯ বিশ্বকাপজয়ী অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক স্টিভ ওয়াহ। তিনি বলেছেন, ‘ছন্দে থাকা কোন দল এবার ৫০০ করে ফেলতেই পারে। একটা সময় চারশ’কে অবিশ্বাস্য মনে হত। এখন তো প্রায়ই হয়। ইংল্যান্ডের কম ঘাসের উইকেটে তো রান হবেই’।

দেখা যাক, ওয়াহ যখন বলেছেন, কথা তো ফলে যেতে ও পারে।

 

লেখক: সাংবাদিক, যমুনা টেলিভিশন।









Leave a reply