‘বোমা আছে’ বলে অজ্ঞাত ফোন কল: ১৭৯ যাত্রী নিয়ে বিমানের জরুরি অবতরণ

|

বোমাতঙ্কে জরুরি অবতরণ করা হল এয়ার এশিয়ার একটি বিমান। রবিবার সন্ধ্যায় কলকাতা বিমানবন্দরে বিমানটির জরুরি অবতরণ করা হয়। বিমান খালি করে শুরু হয়। যদিও পরে কিছু পাওয়া যায়নি।

রবিবার বিকেলে বেঙ্গালুরু বিমানবন্দরে একটি ফোন আসে। ফোনে বলা হয় কলকাতা থেকে বাগডোগরাগামী একটি বিমানে বোমা আছে। ফোনটি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই কলকাতা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে তা জানায় বেঙ্গালুরু বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। খবর পাওয়া মাত্রই ব্যবস্থা নেওয়া হয়। ততক্ষণে এয়ার এশিয়ার ওই বিমানটি উড়তে শুরু করে দিয়েছিল। পাইলটকে জানিয়ে কলকাতা বিমানবন্দরেই এয়ার এশিয়ার ওই বিমানটির জরুরি অবতরণ করা হয়। বিমানের ১৭৯ জন যাত্রীকে বিমান থেকে নামানো হয়। বিমান খালি করে শুরু হয় তল্লাশি। নিরাপত্তারক্ষী, বম্ব স্কোয়াডের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছন। তল্লাশি এখনও চলছে।

তবে তল্লাশিতে কিছু পাওয়া যায়নি। বেঙ্গালুরু বিমানবন্দরে কে বা কারা ফোনটি করেছিল, তা এখনও জানা যায়নি। ফোনটি কোথা থেকে এসেছিল, জানা যায়নি তাও। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

এর আগে গত বছর মার্চ মাস নাগাদ কলকাতাগামী একটি বিমানে বোমাতঙ্ক হয়। সেবার এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানে ছড়িয়েছিল বোমাতঙ্ক। দিল্লি বিমানবন্দরে যাত্রীদের নামিয়ে তল্লাশি চলে। দিল্লি থেকে কলকাতাগামী ওই বিমানেই ছিলেন তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার, শুভেন্দু অধিকারী ও শিশির অধিকারী। সংসদের গ্রীষ্মকালীন অধিবেশন উপলক্ষে বেশ কয়েকদিন ধরে রাজধানীতেই ছিলেন তাঁরা।









Leave a reply