ভারতে জরুরি মেডিকেল ভিসা পেতে ভরসা যখন টুইটার!

|

পাকিস্তানী নাগরিক সাদিয়া। মায়ের লিভার ট্রান্সপ্লান্টের জন্য জরুরি চিকিৎসায় তাকে যেতে হবে ভারতে। কিন্তু ভিসা পাচ্ছেন না তিন সপ্তাহ হলো। আবেদন করেছিলেন ১ নভেম্বর। অযাচিত দেরি করছে ভারতীয় হাইকমিশন। এদিকে মায়ের অবস্থার অবনতি হচ্ছে প্রতিদিন। এখন উপায় কী?

এমন পরিস্থিতি সাদিয়ার কাছে আশীর্বাদ হয়ে দেখা দিল টুইটার! নিজের একাউন্ট থেকে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে মেনশন করে টুইট করলেন তিনি। লিখলেন, “হাই ম্যাডাম! আমার মায়ের জন্য মেডিকেল ভিসার (ভারতের) আবেদন করে উদ্বেগের সাথে অপেক্ষা করছি। পাকিস্তান থেকে জরুরি ভিত্তিতে ট্রান্সপ্লান্টের জন্য তার যাওয়া দরকার। ১ নভেম্বর আবেদন করেছি। রোগীর নাম সায়রা সালেহ। আপনার সহায়তা প্রয়োজন। ধন্যবাদ।”

শনিবার সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করা এই ক’টি কথা কাজ করলো ম্যাজিকের মতো! কিছুক্ষণের মধ্যেই টুইটের জবাব দিলেন স্বয়ং ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি লিখলেন, “অবশ্যই সহায়তা করবো। আমি পাকিস্তানে ভারতীয় হাইকমিশনকে বলে দিয়েছি তারা যেন তোমার মায়ের লিভার ট্রান্সপ্লান্টের জন্য ভিসা ইস্যু করে দেয়।”

হাফ ছেড়ে বাঁচলেন সাদিয়া। মায়ের জন্য উদ্বিগ্ন মেয়েকে অমূল্য সুযোগ করে দিলো সামাজিক যোগাযোগের একটি মাধ্যম।

অবশ্য শুধু সাদিয়া নন, গত কয়েক মাসে এরকম বেশ কয়েকজন পাকিস্তানী নাগরিক ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর উদ্দেশে টুইট করে মেডিকেল ভিসা পেয়েছেন। চিকিৎসা ভিসায় ভারতে আসা সহজ করার বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছেন সুষমা স্বরাজ।









Leave a reply