বাসযাত্রীর পায়ুপথ থেকে ৬টি স্বর্ণের বার উদ্ধার

|

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি
বিশেষ কায়দায় পায়ুপথে স্বর্ণ পাচারের সময় বিজিবির হাতে শহিদুল ইসলাম (৪০) নামে এক পাচারকারী আটক হয়েছে। বুধবার সকালে মেহেরপুর-গাংনী সড়কের আবদারপুর মোড় এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। উদ্ধার করা হয় ৬টি স্বর্ণের বার।

আটককৃত শহিদুল ইসলাম (৪০) চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার কুতুবপুর গ্রামের মৃত জোয়াদ আলী মন্ডলের ছেলে।

বিজিবি জানায়, ঢাকা থেকে শ্যামলী পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসে করে স্বর্ণের একটি চালান মেহেরপুর হয়ে ভারতে ঢুকবে। গোপন সংবাদের এ খবর পেয়ে চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবির একটি দল ভোর থেকে মেহেরপুর-গাংনী সড়কে অবস্থান নেয়। বিজিবির তথ্যমতে, শ্যামলী পরিবহনের ওই বাসটি সকাল ৮টার দিকে আবদারপুর নামকস্থানে পৌঁছালে বিজিবি পরিবহনটিতে তল্লাশি চালায়। এ সময় ওই বাস থেকে শহিদুল ইসলাম নামে একজনকে আটক করা হয়। পরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদে তার শরীরের পায়ুপথে স্বর্ণ পাচারের কথা স্বীকার করে।

চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবির পরিচালক লে. কর্ণেল ইমাম হাসান জানান, আটকের পর চুয়াডাঙ্গা সদর দপ্তরে নিয়ে শহিদুল ইসলামের পায়ুপথ থেকে বের করা হয় ৬টি স্বর্ণের বার। যার আনুমানিক ওজন ৭শ গ্রাম। বাজার মূল্য ৩০ লক্ষ টাকা।

আটককৃত স্বর্ণের চালান মেহেরপুর ট্রেজারিতে জমা দেওয়া হয়েছে। একই সাথে পাচারকারী শহিদুলকে মেহেরপুর সদর থানাতে সোর্পদ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে বিজিবির পক্ষ থেকে হাবিলদার বিরেন্দ্র নাথ দত্ত বাদী হয়ে সেহেরপুর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন বলে বিজিবির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।









Leave a reply