অবসর ভেঙে বিশ্বকাপে ফিরতে চেয়েছিলেন ডি ভিলিয়ার্স

|

বিশ্বকাপে চোকার খ্যাত দক্ষিণ আফ্রিকা যখন ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ খেলতে আসে তখন ডি ভিলিয়ার্স- এর না থাকা খুব একটা মাথায় ছিল না ক্রিকেটপ্রেমীদের। কিন্তু মাঠে নামার পরই মিষ্টার থ্রি-সিক্সটি ডিগ্রি নামে খ্যাত ডি ভিলিয়ার্স- এর অভাব অনুভব হতে থাকে। গতকাল ভারতের কাছে হারের পর অভাব যেন হারে হারে অনুভব করছে ক্রিকেটপ্রেমীরা ও দক্ষিণ আফ্রিকার টিম ম্যানেজমেন্ট।

এর মধ্যেই বোমা ফাটালেন ইএসপিএনক্রিকইনফো। দর্শক সারিতে বসে থাকা এই তারকা ক্রিকেটার নাকি বিশ্বকাপের আগে দক্ষিণ আফ্রিকার দলে ঢুকতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তার এই আবেদন নাকচ করে দিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকার টিম ম্যানেজমেন্ট।

এই বছরের মে মাসে তিনি বিশ্বকাপের ১৫ সদস্যের দলে জায়গা চেয়ে অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস, কোচ ওটি গিবসন ও নির্বাচক কমিটির আহবায়ক লিন্ডা জন্ডির কাছে আবেদন করেছিলেন। কিন্তু তারা ‘এটি সম্ভব হবে না’ বলে জানিয়ে দিয়েছেন। বিষয়টি এতোদিন গোপন থাকলেও আজ তা প্রকাশ পেয়েছে।

ডি ভিলিয়ার্স- এর আবেদন বিবেচনা না করার পেছনে দুটি কারণ সামনে এসেছে। এক, ডি ভিলিয়ার্স গত মে মাসে অবসর নেওয়ার পর আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেননি। জাতীয় দলে যোগ দেওয়ার জন্য দক্ষিণ আফ্রিকার ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলতে হতো, সেখানেও ছিলেন না। তার চেয়েও বড় কারণ, ডি ভিলিয়ার্সকে দলে নিতে হলে একজনকে বাদ দিতে হতো, যেটি অবিচার বলেই মনে করেছে টিম ম্যানেজমেন্ট।

এই বছর এক সাক্ষাৎকারে ভিলিয়ার্স বলেছেন, অবসর নেওয়ার সিদ্ধান্তটা সহজ ছিল না। তবে খোলাখুলি দলে ফেরার ইচ্ছাটা জানাননি। আভাস দিয়েছিলেন, দরকার হলে সিদ্ধান্তটা পরিবর্তন করতে পারেন।
কিন্তু ওয়ানডেতে ৫৩.৫ গড়ে ৯৫৫৭ রান করা ডি ভিলিয়ার্সকে সেই সুযোগ দিল না দক্ষিণ আফ্রিকা।

এদিকে বিশ্বকাপের মাত্রে এক বছর আগে ২০১৮ সালের মে মাসে এবি ডি ভিলিয়ার্সের হঠাৎ অবসরে প্রোটিয়াদের বিশ্বকাপ পরিকল্পনা এলোমেলো হয়ে যায়। ফলে নির্বচকরা বিষয়টি ভালোভাবে নেননি।

এদিকে ডি ভিলিয়ার্সের অবসরে প্রোটিয়াদের বিশ্বকাপ পরিকল্পনা যে এলোমেলো হয়ে গেছে সেটি স্বীকার করেছিলেন খোদ দক্ষিণ আফ্রিকান কোচ ওটিস গিবসন। তিনি বলেন, ‘এবি ডি বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়দের একজন। বিশ্বকাপে সে বড় পার্থক্য গড়ে দিতে পারত এবং সেটি ও নিজেও জানে… এই সময়ে অবসর বেছে নিয়েছে। এটা সত্যি যে এটা আমাদের বিশ্বকাপ পরিকল্পনায় বড় একটা ধাক্কা।’









Leave a reply