কাশ্মীরি শিশুকন্যা ধর্ষণের দায়ে ৬ জনকে অভিযুক্ত করলো ভারতীয় আদালত

|

ভারত অধিকৃত কাশ্মিরে আট বছর বয়সী এক শিশু কন্যাকে নির্যাতন,ধর্ষণ ও হত্যার দায়ে ৬ জন ব্যাক্তিকে অভিযুক্ত করেছে দ্রুত বিচার ট্রাইবুনাল।

হত্যার শিকার শিশুটি সংখ্যালঘু মুসলিম নোমাডিক গোত্রভুক্ত ছিল। খবর বিবিসির।

২০১৮ এর জানুয়ারীতে তাকে ধর্ষণের পর হত্যা করে কাথুয়ার নিকট একটি জঙ্গলে ফেলে যায় দুর্বত্তরা। হত্যার তিন সপ্তাহ পর তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে এঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ৮ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

তবে এঘটনার পরপরই হিন্দুত্ববাদী দলগুলো এ ধর্ষণের দায়ে আটক হওয়া ৮ ব্যাক্তিকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে আন্দোলন শুরু করে।

তদন্তে দেখা যায়, তাকে একটি স্থানীয় মন্দিরে কয়েকদিন আটকে রেখে গণধর্ষণ ও পরবর্তীতে হত্যা করা হয়। এছাড়াও পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদন ৮জন ব্যাক্তির নাম উঠে আসে এই ধর্ষণের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে।

অভিযুক্তরা হলেন ৬০ বছর বয়সী অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা সানজি রাম, পুলিশ কর্মকর্তা সুরেন্দর ভার্মা, আনন্দ দত্ত, তিলক রাজ ও দিপক কাজুরিয়া।

দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালের এ রায়ে ধর্ষিতার আইনজীবি বলেন এর মাধ্যমে একটি বিজয় অর্জিত হলো। পুরো দেশ এই মামলায় সচেতন ও সহানুভূতিশীল ছিল।









Leave a reply