শূন্য রানে সাজঘরে রাহুল

|

জিতলেই সেমিফাইনাল নিশ্চিত। দুই ম্যাচ হাতে রেখে সেমির স্বপ্ন পূরণে ভারতকে ৩৩৮ রান করতে হবে। এমন সহজ সমীকরণের ম্যাচে কঠিন লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতে বিপদে দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ভারত। দলীয় ৮ রানে শূন্য রানে ফেরেন লোকেশ রাহুল। ক্রিস ওকসের বলে তার হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন ভারতীয় ওপেনার।

ইংল্যান্ড ৩৭৭/৭

সেমিফাইনালের স্বপ্ন টিকিয়ে রাখতে হলে জয়ের বিকল্প নেই ইংল্যান্ডের। ভারতের বিপক্ষে জয়ের পাশাপাশি নিজেদের শেষ ম্যাচে নিউজিল্যান্ডকেও হারাতে হবে বিশ্বকাপের স্বাগতিক ইংল্যান্ডেকে।

এমন কঠিন সমীকরণ সামনে রেখে রোববার ভারতের বিপক্ষে ৩৩৭ রানের পাহাড় গড়ে ইংল্যান্ড। দলের হয়ে জনি বেয়ারস্টো সেঞ্চুরির (১১১) আর বেন স্টোকস (৭৯) ও জেসন রয় (৬৬) জোড়া ফিফটি করেন। তাদের ভারতের পক্ষে মোহাম্মদ সামি ৬৯ রানে ৫ উইকেট শিকার করেন।

রোববার ইংল্যান্ডের বার্মিংহামের এজবাস্টনে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনীতে জেসন রয়ের সঙ্গে ২২.১ ওভারে ১৬০ রানের জুটি গড়েন জনি বেয়ারস্টো। ফিফটি তুলে নিয়ে কুলদীপ যাদবের বলে রবিন্দ্র জাদেজার দুর্দান্ত ক্যাচে পরিণত হয়ে সাজঘরে ফেরেন জেসন রয়। তার আগে ৫৭ বলে সাতটি চার ও ২টি ছক্কায় ৬৬ রান করেন ইংলিশ এ ওপেনার।

জেসন রয় ফিরে গেলেও ব্যাটিং তাণ্ডব চালিয়ে যান জনি বেয়ারস্টো। ২৬তম ওভারে হার্দিক পান্ডিয়ার বলে সিঙ্গেল রান নেয়ার মধ্য দিয়ে শতরানের ম্যাজিকফিগার স্পর্শ করেন বেয়ারস্টো। ওয়ানডে ক্রিকেটে ৭১তম ম্যাচে ক্যারিয়ারের অষ্টম সেঞ্চুরি করেন তিনি।

তবে সেঞ্চুরি করার পর নিজের ইনিংসা লম্বা করতে পারেননি বেয়ারস্টো। দ্বিতীয় উইকেটে জো রুটের সঙ্গে ৪৫ রান যোগ করেন। ১০৯ বলে ১০টি চার ও ৬টি ছক্কায় ১১১ রান করে ফেরেন বেয়ারস্টো।

দলের দুরুন্ত শুরুর পরও ব্যাটিংয়ে নেমে সুবিধা করতে পারেননি ইংলিশ অধিনায়ক ইয়ন মরগান। মোহাম্মদ সামির বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন তিনি। এরপর বেন স্টোকসের সঙ্গে চতুর্থ উইকেটে ৭০ রানের জুটি গড়েন জো রুট। ৫৪ বলে দুটি চারের সাহায্যে ৪৪ রান করে মোহাম্মদ সামির শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন রুট।

ছয় নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নামা জস বাটলারকে সঙ্গে নিয়ে ইনিংসের শেষ দিকে রীতিমতো ব্যাটিং তাণ্ডব চালান বেন স্টোকস। পঞ্চম উইকেটে ৩৩ রানের জুটি গড়েন তারা। মাত্র ৮ বলে একটি চার ও দুটি ছক্কায় ২০ রান করা জস বাটলারকে তৃতীয় শিকারে পরিণত করেন মোহাম্মদ সামি। তবে ব্যাটিং অব্যাহত রাখেন বেন স্টোকস। ইনিংস শেষ হওয়ার দুই বল আগে বুমরাহরি শিকারে পরিণত হওয়ার আগে ৫৪ বলে ৬টি চার ও তিন ছক্কায় ৭৯ রান করেন স্টোকস।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ইংল্যান্ড: ৫০ ওভারে ৩৩৭/৭ (বেয়ারস্টো ১১১, বেন স্টোকস ৭৯, জেসন রয় ৬৬, রুট ৪৪; সামি ৫/৬৯)।









Leave a reply