ভারতের বিপক্ষে জিততে পারতো বাংলাদেশ, মনে করেন টেন্ডুলকার

|

ভারতের বিপক্ষে ২৮ রানে হেরে সেমিফাইনালের স্বপ্ন শেষ হয়ে গেছে বাংলাদেশের। তবে সেদিনও লড়েছেন টাইগাররা। শেষ দিকে টিম ইন্ডিয়ার বুকে কাঁপন ধরিয়ে দিয়েছিলেন তারা। বাংলাদেশের লড়াকু পারফরম্যান্সে বিমুগ্ধ ক্রিকেটবিশ্ব। ব্যতিক্রম নন ভারতের কিংবদন্তি ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকার। অবশেষে মাশরাফিদের বন্দনায় মাতলেন তিনি।

বিশ্বকাপে ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলছে বাংলাদেশ। শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করেন টাইগাররা। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও আফগানিস্তানকে দাপটের সঙ্গে হারিয়েছেন তারা। অস্ট্রেলিয়া-ভারতের কাছে হারলেও লড়াই করেছেন। কেবল ইংল্যান্ডের বিপক্ষে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলতে পারেননি লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলা এ বাংলাদেশই টেন্ডুলকারের দেখা সেরা।

তিনি বলেন, এটি শুধু ভালো পারফরম্যান্স নয়, তারা এখন ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলছে। এটি স্বীকার করতেই হবে। তাদের কৃতিত্ব দিতেই হবে। বাংলাদেশ এখন ক্রিকেটের ব্র্যান্ড। আমার দেখা মতে, এটিই প্রতিবেশিদের সেরা দল ও শ্রেষ্ঠ পারফরম্যান্স।

ভারতের বিপক্ষে লক্ষ্যটা তাড়া করা অর্থাৎ জেতাটা অসম্ভব কিছু ছিল না। তবে সেটি হয়নি মিডলঅর্ডারের ব্যর্থতায়। টেন্ডুলকারের মতে, ওই ম্যাচে মাঝপথে বড় জুটি গড়ে তুলতে পারলে ফল পক্ষে আসতে পারত বাংলাদেশের।

ভারতীয় ক্রিকেটের লিটল মাস্টারের ভাষ্যমতে, মিডলঅর্ডারে ব্যাটসম্যানরা আরেকটু বড় জুটি গড়তে পারলে ভারতের ৩১৫ রানের লক্ষ্য ছোঁয়া কঠিন হতো না বাংলাদেশের। বিশ্বকাপে দারুণ খেলেছে তারা।

মঙ্গলবার এজবাস্টনে ৩১৪ রানের বিশাল লক্ষ্য ছুড়ে দিয়েছিল ভারত। সেটি পাড়ি দিতে নেমে তীরে প্রায় পৌঁছেই গিয়েছিল বাংলাদেশ। তবে শেষ পর্যন্ত ২৮৬ রানে থেমে যায় লাল-সবুজ জার্সিধারীদের ইনিংস। সঙ্গে ধূলিসাৎ হয়ে যায় বিশ্বকাপ স্বপ্নও। শুক্রবার পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে টুর্নামেন্ট শেষ করবেন মাশরাফিরা।









Leave a reply