মানিকগঞ্জে ২ যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম


মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক লালন ফকিরসহ দুই জনকে কুপিয়ে আহত করেছে সন্ত্রাসীরা। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাত পৌনে ১০ টার দিকে উপজেলার পোস্ট অফিস এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় শিবালয় উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারমান ও উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি আলী আহসান মিঠুসহ ১৮ জনের নামে থানায় মামলা হয়েছে।

শিবালয় উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস জানান, যুবলীগ আহবায়ক লালন ফকির ও সদস্য রাকিব হোসেন মোটরসাইকেলে করে তাকে বাড়িতে নামিয়ে দিয়ে আসার পথে এই হামলার শিকার হন।

পোস্ট অফিস এলাকায় সন্ত্রাসীরা আগে থোকেই উৎপেতে ছিলো। খবর পেয়ে তিনি ও স্থানীয়রা গুরুতর অবস্থায় যুবলীগের দুই নেতাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। উন্নত চিকিৎসার জন্য রাতেই তাকে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। লালন ফকিরের মাথা, ঘাড় ও হাতসহ শরীরের বিভিন্নস্থানে কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয়েছে।

শিবালয় থানার ওসি মনির হোসেন জানান, লালন ফকিরের বড় ভাই আব্দুল হালিম বাদী হয়ে রাতেই থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আলী আহসান মিঠুসহ ১৮ জনকে আসামি করা হয়। তবে এখনও কেউ গ্রেফতার হয়নি।

উল্লেখ্য, মাস দু’য়েক আগে শিবালয় উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় কমিটি। এ কমিটি নিয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য এ এম নাঈমুর রহমার দুর্জয় এবং একই আসনে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম জাহিদ অনুসারীদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছিলো। উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি ও ভাইস চেয়ারম্যান আলী আহসান মিঠু এস.এম জাহিদ অনুসারি নেতা হিসাবে পরিচিত।









Leave a reply