কুড়িগ্রামে ৪ লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দী, খাদ্য ও বিশুদ্ধ পানির সংকট

|

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
কুড়িগ্রামে সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি ঘটেছে। ব্রহ্মপুত্র নদের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়েছে। ব্রহ্মপুত্রের পানি চিলমারী পয়েন্টে ৫ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ১৩১ এবং নুনখাওয়া পয়েন্টে ৫ সেন্টিসিটার বৃদ্ধি পেয়ে ১০০ সে.মিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
ধরলা নদীর পানি ব্রীজ পয়েন্টে ১ সে.মি কমে গিয়ে বিপৎসীমার ১১৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে বইছে। বুধবার সকালের দিকে রৌমারী উপজেলার বাগমারা বন্দবের বেড়ি বাধ ভেঙে উপজেলা প্রশাসনসহ ৯টি গ্রামে পানি ঢুকছে।
জেলার বন্যা কবলিত ৬০টি ইউনিয়নের ৪২০টি গ্রামের সোয়া ৪ লাখ মানুষ পানিবন্দী হয়ে পরেছে। বন্যা কবলিত বেশিরভাগ এলাকায় দেখা দিয়েছে খাদ্য ও বিশুদ্ধ পানির সংকট। এসব এলাকায় বানভাসী মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ব্যাহত হয়েছে। নিম্নাঞ্চলের পথঘাট ও ঘরবাড়ি তলিয়ে যাওয়ায় ভোগান্তি আরো বেড়েছে।

কুড়িগ্রামের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মো: হাফিজুর রহমান জানান, বন্যার্তদের সহায়তায় নতুন করে ৩ মে.টন চাল ও ২ লক্ষ টাকা বরাদ্দ পাওয়া গেছে।









Leave a reply