ভাড়াটিয়াকে ‘ছেলেধরা’ বানিয়ে গণপিটুনি, বাড়িওয়ালা গ্রেপ্তার

|

ছেলেধরা গুজব ছড়িয়ে ভাড়াটিয়াকে গণপিটুনি দেওয়ানোর অভিযোগে এক বাড়িওয়ালাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে গতকাল সোমবার এ ঘটনা ঘটে। বকেয়া ভাড়া নিয়ে দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হলে ‘ছেলেধরা’ গুজবের সুযোগ নিয়ে ভাড়াটিয়াকে মার খাওয়ানোর চেষ্টা করেন হাসনা বেগম আয়েশা নামের ওই বাড়িওয়ালা।

জানা গেছে, রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর কোনাপাড়া এলাকার রহমতপুরে আয়েশার (৩৫) টিনশেড ঘরে ভাড়া থাকতেন খোকন (৪০)। গতকাল সকালে আয়েশা এক মাসের বকেয়া ভাড়া চাইতে গেলে খোকন সেটি পরে দেওয়ার কথা বলেন। এ নিয়ে দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হলে বাড়িওয়ালা আয়েশা ‘ছেলেধরা’ বলে চিৎকার করেন। এ সময় স্থানীয় কয়েকজন দৌড়ে এসে খোকন মিয়াকে পিটুনি দেয়। অবশ্য, কিছুক্ষণ পরেই তারা বিষয়টি বুঝতে পেরে সটকে পড়েন।

যাত্রাবাড়ী থানার সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী ভাড়াটিয়া খোকন মিয়া (৩৫) মামলা করলে হাসনা বেগম ওরফে আয়েশা (৪০) নামের ওই বাড়িওয়ালাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে খোকনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়ার পর রাতে খোকন যাত্রাবাড়ী থানায় মামলা করেন। এতে বাড়িওয়ালা আয়েশাসহ ২০-২৫ জনকে আসামি করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, দেশের বিভিন্ন স্থানে ‘ছেলেধরা’ গুজব ছড়িয়ে গণপিটুনি দেয়ার ঘটনা ঘটছে। গণপিটুনির ঘটনায় সারাদেশে ৬ জন মারা গেছেন, আহত হয়েছেন ১৫। এসব ঘটনায় ৯টি মামালা ও ১৪টি জিডি হয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে ৮১ জনকে। আজ দুপুরে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী গুজব সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। বলেছেন, ১ জন খুন করলে যেমন হত্যা মামলা তেমনি ১০০ জন মিলে মেরে ফেললেও একই হত্যা মামলা হবে। কেউ আইন হাতে তুলে নেবেন না। পুলিশকে জানান। ‘৯৯৯’-এ জানান।

যমুনা অনলাইন: টিএফ









Leave a reply