কুষ্টিয়ায় ‘ছেলেধরা’ সন্দেহে গণপিটুনিতে জড়িত ৩৪ জন আটক

|

কয়েকদিন ধরে কুষ্টিয়ার বিভিন্ন যায়গায় ছেলেধরা গুজব ছড়িয়ে মারপিট করার অভিযোগে ৩৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

গতকাল কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ছেলেধরা সন্দেহে হাসিনা বেগম (৬০) নামে মানসিক ভারসাম্যহীন এক নারীকে গনপিটুনি দিয়ে আহত করার ঘটনায় ২৫০ জনকে আসামি করে মামলায় ২০ জনকে আটক করেছে দৌলতপুর থানা পুলিশ। এছাড়াও গুজব ছড়ানোর অভিযোগে কুষ্টিয়া সদর থানা পুলিশ ৬ জন ও মিরপুর থানা পুলিশ ৮ জনকে আটক করেছে।

দৌলতপুর থানার ওসি আজম খান জানান, গতকাল সোমবার সকালে মানসিক ভারসাম্যহীন এক নারী বাড়ি থেকে বের হয়ে শিতলাইপাড়া গ্রামে গেলে এলাকবাসী তাকে গণপিটুনি দিয়ে আহত করলে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসা দেয়। এ ঘটনায় দৌলতপুর থানায় মামলা হলে গতরাতে শিতলাইপাড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে গণপিটুনির সাথে জড়িত থাকা ২০ জনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতদের দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এছাড়াও কুষ্টিয়া সদর ও মিরপুর থানা পুলিশের অভিযানে ১৪ জনকে আটক করা হয়েছে।









Leave a reply