ঢাকায় এসে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত, ঝালকাঠিতে গিয়ে শিক্ষিকার মৃত্যু

|

ঢাকায় বেড়াতে গিয়ে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে বাড়িতে এসে নিগার সুলতানা নামে ঝালকঠির এক কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষিকার মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

রোববার দুপুরে এ মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। ২ সন্তানের জননী নিগার সুলতানা ঝালকাঠির রাজাপুরের দক্ষিণ তারাবুনিয়া গ্রামে শাহজাহান মৃধার মেয়ে ও কাউখালি উপজেলার শিয়ালকাঠি গ্রামের শামসু উদ্দিন খানের স্ত্রী।

নিগার ন্যাশনাল সার্ভিসের কর্মী হিসেবে রাজাপুর উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসে কর্মরত ছিলেন ও দক্ষিণ তারাবুনিয়া গ্রামের সৈয়দবাড়ি আলবিরুনী কিন্ডারগার্টেনের সিনিয়র শিক্ষক।

নিগার সুলতানার স্বজনরা জানান, ঢাকার ধানমন্ডিতে ভাড়া বাসায় থাকাকালীন গত বুধবার সামান্য জ্বর অনুভব করলে বৃহস্পতিবার রাতে গ্রামে বাবার বাড়িতে চলে আসেন। এরপর জ্বর বাড়লে শুক্রবার ভান্ডারিয়ার ডাক্তার সৌরেন্দ্র নাথ সাহার কাছে গেলে তাকে এন্টিব্যায়টিকসহ ৩ প্রকারের ঔষধ দেন এবং রক্ত পরীক্ষা করাতে বলেন। পরে শনিবার রাতে জ্বরের মাত্রা বেড়ে গেলে রোববার সকালে ভান্ডারিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক তার ডেঙ্গু আক্রাস্ত হয়েছে ধারণা করে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। বরিশাল নেয়ার পথিমধ্যে নিগার সুলতানা অচেতন হয়ে যায় এবং দুপুরের দিকে বরিশাল শেবাচিমে নিলে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাক্তার বেল্লাল হোসেন জানান, যেহেতু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডেঙ্গু পরীক্ষার ব্যবস্থা নেই। তাই ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছে ধারণা করেই তাকে দ্রুত বরিশাল রেফার্ড করা হয়েছিলো।









Leave a reply