১৫ লাখ টন চাল আমদানি হবে, কমছে শুল্ক

|

চলতি অর্থবছরে সরকার যে পরিমাণ ধান-চাল সংগ্রহ করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছিল, সারাদেশে বন্যার কারণে তা অর্জন করা সম্ভব হবে না বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম।

বুধবার সচিবালয়ে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে খাদ্য পরিকল্পনা ও পরিধারণ কমিটির আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ তথ্য জানান। খাদ্যমন্ত্রী ছাড়াও সভায় উপস্থিত ছিলেন- অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘হাওরে বন্যাসহ, সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির কারণে পর্যাপ্ত পরিমান খাদ্য সংগ্রহ করা যায়নি। ‘

পরিস্থিতি বিবেচনা করে ১৫ লাখ টন চাল ও ৫ লাখ টন গম আমদানির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানান খাদ্যমন্ত্রী।

দেশে খাদ্য সংকট আছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘কোনও খাদ্য সংকট নেই। পর্যাপ্ত খাদ্য মজুদ আছে। বাজারেও খাদ্য আছে। ইতোমধ্যে ভারত থেকে ওপেন টেন্ডারের মাধ্যমে দুই লাখ ৬০ হাজার টন চাল ও অন্যান্য দেশ থেকে ৫ লাখ ৭০ হাজার টন গম এসেছে।’

আগাম সাবধানতা অবলম্বন করায় এই আমদানির সিদ্ধান্ত বলে জানান কামরুল ইসলাম।

চালের ওপর আমদানি শুল্ক ২৮ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১০ শতাংশ করায় অনেক ব্যবসায়ী চাল আমদানি করছেন। চাল আমদানি উৎসাহিত করতে বিদ্যমান ১০ শতাংশ থেকে শুল্ক কমিয়ে ২ শতাংশ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। দুই-একদিনের মধ্যে এসংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারির কথা জানান খাদ্যমন্ত্রী

যমুনা অনলাইন: টিএফ

 









Leave a reply