খুনের পর লাশ গুমের মামলায় ১ জনের ফাঁসি, ২ জনের যাবজ্জীবন

|

বরগুনা প্রতিনিধি

বরগুনায় কলেজ ছাত্রকে অপহরণ ও খুনের পর লাশ গুম করার দায়ে একজনের ফাঁসি ও ২ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বুধবার দুপুরে বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোঃ আছাদুজ্জামান এ রায় দেন।

বরগুনা পৌরসভার থানা পাড়া এলাকার ছাত্তার গাজীর ছেলে সালাউদ্দীনকে (২৫) ফাঁসি ও সদর উপজেলার গৌরীচন্না এলাকার নাজমুল (২৬) এবং থানাপাড়া এলাকার রুবেলকে (২৫) যাবজ্জীবন দেয়া হয়।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ২০১৩ সালের গত ১৯ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় থানাপাড়া এলাকার নিজ বাসা থেকে চা পানের জন্য বাইরে গিয়ে নিখোঁজ হন অনিক। এরপর অপহরণকারী সালাউদ্দীন, অনিকের বাবা সুবল চন্দ্র রায়ের কাছে মুঠোফোনে দুই দফায় প্রথমে দুই লাখ ও পরে তিন লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। মুক্তিপণের এই টাকা নিয়ে বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলায় যেতে বলে অপহরণকারীরা। সেই অনুযায়ী মুক্তিপণের টাকা নিয়ে আমতলী যাওয়ার পর অপহরণকারীদের মোবাইলটি বন্ধ পাওয়ার তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেননি অনিকের বাবা সুবল চন্দ রায়।

এ ঘটনায় ২০১৩ সালের ২০ সেপ্টেম্বর বরগুনা সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে অনিকের বাবা। পরে এই সাধারণ ডায়েরিটি অপহরণের পর হত্যা ও মৃতদেহ লুকানোর মামলায় পরিণত হয়। এ মামলায় পুলিশ সালাউদ্দীন, নাজমুল ও রুবেলকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে।

পরে শুনানি শেষে আজ এই রায় দেয়া হয়।









Leave a reply