স্টাইল করে চুল-দাড়ি কাটা যাবে না!

|

ছাত্র, তরুণ ও যুবকদের স্টাইলিশ চুল-দাড়ি না কাটতে সেলুন মালিকদের নিয়ে হয়েছে মতবিনিময় সভা! সোমবার বিকাল ৩টায় রাজশাহীর বাঘায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের (ইউএনও) সম্মেলন কক্ষে উপজেলার সব সেলুন ব্যবসায়ীদের নিয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠক সূত্র জানাচ্ছে, ছাত্র ও যুবকরা স্টাইলিশ চুল কেটে বখাটেদের মতো ঘোরাফেরা করে। এতে তারা সমাজের ভাবমূর্তি নষ্ট করছে। তাদের দেখতেও অনেকটা বেমানান লাগে। ওই ছাত্র, যুবকরা ইভটিজিংসহ নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে। এই কারণে ছাত্র ও উঠতি বয়সের যুবকসহ যেকারো মডেলিং স্টাইলে চুল কাটাসহ দাড়ি ও গোঁফ রঙ না করার বিষয়ে সেলুন মালিকদের সঙ্গে বৈঠক করে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি, দোকানে হেয়ার স্টাইলের কোনো ক্যাটালগ না রাখার জন্যও বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে ওসি নজরুল ইসলাম গণমাধ্যমে বলেন, মডেলদের অনুকরণে স্টাইলিশ করে চুল, দাড়ি ও গোঁফ কাটার বিষয়ে প্রায় সময়ই ছাত্র ও যুবকদের অভিভাবকরা ও শিক্ষকরা মৌখিকভাবে অভিযোগ করেন। যে সব ছাত্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তারা সবাই সপ্তম থেকে একাদশ শ্রেণির ছাত্র। ছাত্র ও উঠতি বয়সের যুবকদের ‘বখাটে স্টাইলে’ চুল কাটায় নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। ‘বখাটে স্টাইলে’ চুল কাটার পোস্টারও সেলুন থেকে সরিয়ে ফেলতে হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহিন রেজা বলেন, উপজেলা সেলুন সমিতির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ সমিতির সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। যারা এ সব কথা অবজ্ঞা করে ‘বখাটে স্টাইলে’ চুল-দাঁড়ি কাটবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উপজেলা সেলুন (শীল সমিতি) সমিতির সাধারণ সম্পাদক বাচ্চু বলেন, প্রশাসনের নির্দেশনায় আমরা স্টাইল করে চুল, দাড়ি ও গোঁফ কাটা বন্ধ করে দিয়েছি। স্বাভাবিকভাবেই চুল কাটাতে কেউ রাজি না হলে প্রশাসনকে জানাতে বলা হয়েছে।

মতবিনিময় সভায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহিন রেজার সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন বাঘা পৌর মেয়র আবদুর রাজ্জাক, ওসি নজরুল ইসলামসহ উপজেলা সেলুন (শীল সমিতি) সমিতির আওতায় অর্ধশতাধিক সদস্য।









Leave a reply