গো-সেবায় খোয়া গেল স্বর্ণ, গোবরই ভরসা মালিকের

|

বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে আসার পর পড়নের স্বর্ণের গয়না খুলে রেখেছিলেন রান্নাঘরে পাত্রে। পরে সেই পাত্রেই ফেলেন সবজির উচ্ছিষ্ট আর তা খেতে দেয়া হয় একটি ষাড়কে। অবশেষে ৪০ গ্রাম স্বর্ণের গয়না গেল ষাড়ের পেটে।

ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিমবঙ্গের সিরসা জেলার এক গ্রামে। জেলার জনকরাজ নামে এক ব্যবসায়ীর বাড়িতে ঘটে এ ঘটনা।

গত চারদিন আগে তার বাড়ির কাছে একটি ষাড় এলে গো-সেবার নিমিত্তে সেই ষাড়টিকে সবজির খোসা ভর্তি পাত্রটি দেয়া হয় খাবার হিসেবে। আর সেখান থেকেই সেখানে থাকা স্বর্ণও গিলে ফেলে ষাড়টি।

গয়নার কথা মনে পড়ার পর খুজতে গেলে রান্নাঘরের দড়জার কাছে একটি কানের দুল পড়ে থাকতে দেখা যায় পরে বাড়ির সিসিটিভি ফুটের দেখে নিশ্চিত হওয়া যায় স্বর্ণ রাখা পাত্রেই করা হয়েছিল গো-সেবা।

তারপর স্বর্ণ গিলে খাওয়া বেওয়ারিশ ষাড়টিকে খুঁজতে লেগে যায় ৫ ঘণ্টা। ষাড়টিকে খুঁজে পাবার পর থেকেই ষাড়টিকে প্রচুর পরিমাণে খাইয়ে চলছে সে পরিবার, কারণ গিলে ফেলা স্বর্ণ উদ্ধারের একমাত্র উপায় এখন গোবর। কিন্তু বেয়ারা ষাড় গত তিনদিন কোন মলত্যাগই করছেনা এতে বিপাকে পড়েছে পরিবারটি।

এঘটনার পর জেলার লাজপত রায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণী বিজ্ঞানের ডিরেক্টর রবিন্দর শর্মা বলেন, আগে এক্সরে করে দেখতে হবে ষাড়ের পেটে সোনা আছে কিনা। তারপর অপারেশন করে তা উদ্ধার করতে হবে। তবে গোবরের মাধ্যমেও উদ্ধার করা যায় তবে তা জটিল প্রক্রিয়া।









Leave a reply