কোহলির মতো ক্রিকেটার হতে চায় ওয়ার্নারের মেয়ে

|

বল বিকৃতিকাণ্ডে এক বছর নির্বাসন কাটিয়ে চলতি বছরের মার্চে দুর্দান্তভাবে ফিরেছেন ডেভিড ওয়ার্নার। চার-ছক্কার বন্যায় ফের ভাসাচ্ছেন সবুজ মাঠ।

ওপেনিংয়ে নেমে ঝড়ো ব্যাটিং আর দুর্দান্ত ফিল্ডিংয়ে পারদর্শী এই অজি ক্রিকেটারের রয়েছে অসংখ্য ভক্ত। শুধু দেশের জার্সি গায়েই নয়, ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগেও (আইপিএল) দাপিয়ে বেড়ান অস্ট্রেলিয়ান এ বাঁহাতি। যে কারণে আইপিএলে সানরাইজ হায়দরাবাদের ত্রাতা হয়ে উঠেছেন ডেভিড ওয়ার্নার।

তাই বিরাট-রোহিতদের দেশ ভারতেও তার ভক্তের সংখ্যা অগণিত।

তবে বাবাকে নয়, ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে বেশ পছন্দ ডেভিড ওয়ার্নারের মেয়ে আইভি মের। বলতে গেলে বিরাটের বড় ফ্যান সে।

এই বয়সেই কোহলির মতো ব্যাট করতে চায় আইভি। সম্প্রতি টুইটারে ডেভিড ওয়ার্নারের স্ত্রী ক্যান্ডিস ওয়ার্নারের পোস্ট করা একটি ভিডিও থেকে এমনটিই জানা গেল।

গত ৯ নভেম্বর ক্যান্ডিস ওয়ার্নার নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে যে ভিডিও পোস্ট করেন তাতে দেখা গেছে, বাড়ির ভেতরে একটি ব্যাটকে স্টাম্প বানিয়ে টেনিস বল দিয়ে ব্যাট করছে আইভি। ব্যাট করতে করতেই সে বলছে, আমি বিরাট কোহলি। এবং কথাটি বারবার বলছে সে।

ক্যান্ডিস ওয়ার্নার সেই ভিডিও পোস্ট করে লেখেন, এই ছোট্ট মেয়েটি অনেকটা সময় ভারতে কাটিয়েছে। বিরাট কোহলি হতে চায় সে।

ভিডিও প্রসঙ্গে ডেভিড ওয়ার্নার লিখেছেন, শি ইজ মাই রক।

ডেভিড ওয়ার্নারের মেয়ের কোহলি হতে চাওয়ার ভিডিও নেটদুনিয়ায় ইতিমধ্যে ভাইরাল।

ভক্তদের অনেকেই বলছেন, বড় হয়ে বাবার মতো ক্রিকেটার হবে এই স্টার কিড।

উল্লেখ্য, আইপিএলে বিরাট কোহলির চেয়ে ওয়ার্নারের রেকর্ড একটু বেশি উজ্জ্বল।

আইপিএলে ১৭৭ ম্যাচ খেলে ৫৪১২ রান করেছেন বিরাট কোহলি, যার গড় ৩৭.৮৪। অন্যদিকে ১২৬ ম্যাচ খেলে ওর্য়ানারের সংগ্রহ ৪৭০৬ রান। যার গড় ৪৩.১৭। যেটি এই টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ।

আর আইপিএলে রানের তালিকায় চতুর্থ স্থানে রয়েছেন ওয়ার্নার।

২০১৫-এর আসরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ছিলেন ওয়ার্নার। ১৪ ম্যাচে তিনি করেছিলেন ৫৬২ রান। ছাপিয়ে গিয়েছিলেন এবি ডি ভিলিয়ার্স ও বিরাট কোহলিকে।

২০১৬-তে ডেভিড ওয়ার্নার শেষ করেছিলেন দ্বিতীয় স্থানে বিরাট কোহলির পর। যেখানে ১৬ ম্যাচে ৯৭৩ রান করেছিলেন বিরাট। সেখানে ওয়ার্নার করেছিলেন ১৭ ম্যাচে ৮৪৮ রান।

তার পরের মৌসুমে ওয়ার্নার আবার শীর্ষে পৌঁছে গিয়েছিলেন ব্যাটিং তালিকার। সেবার তিনি ১৪ ম্যাচে ৬৪১ রান করেছিলেন। সেবার দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন গৌতম গম্ভীর ১৬ ম্যাচে ৪৯৮ রান করে।

বল বিকৃতিকাণ্ডে নির্বাসিত হয়ে ২০১৮-এর আইপিএলে খেলতে না পারলেও ২০১৯-এ ফিরেই নিজের জাত চেনান ওয়ার্নার। ব্যাটিং তালিকার শীর্ষে ছিলেন এই অস্ট্রেলিয়ান তারকা। ১২ ম্যাচে ৬৯২ রান করেছিলেন, যার গড় ছিল ৬৯.২০ এবং স্ট্রাইক রেট ছিল ১৪৩.৮৬।

আইপিএল সুবাদে ভারতে দীর্ঘসময় থাকার কারণে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের বেশ পছন্দ ওয়ার্নারকন্যার। তন্মেধ্যে বিরাট কোহলিকে বেশ পছন্দ তার।









Leave a reply