‘জনগণের সুখ-দুঃখের সাথী হতে হবে সেনাবাহিনীকে’

|

দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকারে সেনাবাহিনীকে সর্বদা প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দুপুরে, চট্টগ্রামের ভাটিয়ারী মিলিটারি একাডেমিতে রাষ্ট্রপতি কুচকাওয়াজে তিনি আরও বলেন, বিশ্ব দরবারে সেনাবাহিনীর যে সুনাম রয়েছে তা অক্ষুন্ন রাখতে হবে। সেনাবাহিনী জনগণের অবিচ্ছেদ্য অংশ উল্লেখ করে, বিভিন্ন দুর্যোগে বিপন্ন মানুষের পাশে দাঁড়াতেও নবীন ক্যাডেটদের প্রতি আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

সশস্ত্র বাহিনীতে যুক্ত হয়েছেন ৩৪৩ নবীন সেনা কর্মকর্তা। কমিশনপ্রাপ্ত নবীন অফিসারদের মধ্যে ৫০জন নারী। ভাটিয়ারীতে তাদের মনোজ্ঞ কুচকাওয়াজে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী। প্রশিক্ষণ আর অনুশীলনে দক্ষতার স্বাক্ষর রাখা চৌকস কর্মকর্তাদের হাতে, স্বীকৃতি স্মারক তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী। সোর্ড অবঅনার সম্মাননা এবং সামরিক বিষয়ে সমান দক্ষ হওয়ার সেনাপ্রধান স্বর্ণপদক তুলে দেয়া হয় সেরা অফিসারের হাতে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানান, মিলিটারি একাডেমিকে অত্যাধুনিক একাডেমিতে পরিণত করতে কাজ করে যাচ্ছে সরকার। সেনাবাহিনীকে একটি আধুনিক ও প্রশিক্ষিত বাহিনী হিসেবে গড়ে তুলতে সব ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যয়ও ব্যক্ত করেন প্রধানমন্ত্রী।

 









Leave a reply