ভৈরবে পরকীয়ার ফাঁদে পড়ে গৃহবধূর আত্মহত্যা

|

ভৈরব প্রতিনিধি:
ভৈরবে গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গৃহবধূর নাম শান্তা ইসলাম এবং স্বামীর নাম জুয়েল মিয়া। পুলিশ গৃহবধূর লেখা একটি চিরকুট উদ্ধার করেছে।

চিরকুটে লেখা ছিল ‘আমার জন্য তুমি জীবন দিওনা।’ ঘটনাটি ঘটেছে আজ শনিবার সকাল সাড়ে ৯ টায় ভৈরব বাজারের টিনপট্রির একটি বাসায়। গৃহবধূর প্রবাসী স্বামী গত ৮ জানুয়ারী সৌদী আরব থেকে দেশে আসে। তাদের বাড়ী নরসিংদির রায়পুরা উপজেলার গৌরীপুর গ্রামে। তবে তারা কয়েক মাস যাবত ভৈরব বাজারের একটি ভাড়া বাসায় থাকত।

খবর পেয়ে পুলিশ বাসায় এসে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে। এ সময় তার স্বামীকে আটক করে পুলিশ। পরকীয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে বলে পুলিশ ধারনা করছে। গৃহবধূর দুটি শিশু সন্তান রয়েছে।

গৃহবধূর মা হেলেনা বেগম জানায়, আমার মেয়ের প্রেমিককে আমি বহুবার নিষেধ করলেও সে বাধা উপেক্ষা করে আমার মেয়ের সাথে যোগাযোগ রাখত। দু’দিন আগেও আমার জামাই ও মেয়েকে বুঝিয়ে ঘটনার মীমাংসা করে গেছি। কিন্ত জুয়েল গতরাতে আমার মেয়েকে মারধোর করার কারনেই আমার মেয়ে আত্মহত্যা করে বলে তিনি দাবি করেছেন।

ভৈরব থানার পুলিশ পরিদর্শক ( তদন্ত) বাহালুল খাঁন বাহার জানান, প্রাথমিকভাবে পুলিশ ধারনা করছে পরকীয়ার ঘটনায় ঝগড়া করে গৃহবধূ আত্মহত্যা করে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার স্বামীকে আটক করা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের পর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।









Leave a reply