জাকারবার্গের একক সিদ্ধান্তে চলবে না ফেসবুক, ইন্সটাগ্রাম

|

এখন থেকে ফেসবুক ও ইন্সটাগ্রাম সংক্রান্ত কোন সিদ্ধান্ত আর একা নিতে পারবেন না মার্ক জাকারবার্গা। বরং প্রতিষ্ঠানটির সিদ্ধান্ত নেবে ২০ সদস্যের একটি বোর্ড এবং তারা মার্ক জাকারবার্গের সিদ্ধান্তও পর্যালোচনা করার ক্ষমতা রাখবে। খবর ভারতীয় গণমাধ্যম দি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস’র।

ফেসবুক ও ইন্সটাগ্রাম সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য এই বোর্ডে সদস্য পদে থাকবেন, প্রাক্তন প্রধান মন্ত্রী, আইন বিশেষজ্ঞ, নোবেল পিস প্রাইজ প্রাপ্ত ও মোলিক অধিকার নিয়ে কাজ করা উকিল সহ মোট ২০ জন।

২০ জনের মধ্যে ইতিমধ্যে ৪ জনকে বাছাই করে একটি ছোট গ্রুপ তৈরি করা হয়েছে যারা ফোসবুকের সঙ্গে আলোচনা করে বাকি সদস্যদের নিয়ে বোর্ড তৈরি করবে। এই চার জন হলেন, মার্কিন ফেডারেল সার্কিট বিচারক ও ধর্মীয় স্বাধীনতা বিশেষজ্ঞ মাইকেল ম্যাককনেল, সাংবিধানিক আইন বিশেষজ্ঞ জামাল গ্রিন, কলম্বিয়ার অ্যাটর্নি কাতালিনা বোটেরো-মেরিনো এবং ডেনিশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী হেল থর্নিং-শ্মিট।

প্রাথমিক দলটির মধ্যে রয়েছে: মানবাধিকারের প্রাক্তন ইউরোপীয় আদালতের বিচারক আন্দ্রেস সাজা, ইন্টারনেট সানস ফ্রন্টিয়ারের নির্বাহী পরিচালক জুলি ওওনো, ইয়েমেনের কর্মী এবং নোবেল শান্তি পুরষ্কার বিজয়ী তাওয়াককোল কারমন, গার্ডিয়ান অ্যালান রাসব্রিজারের প্রাক্তন সম্পাদক এবং পাকিস্তান ডিজিটাল অধিকার আইন বিশেষজ্ঞ নিঘাত বাবা।

এই বোর্ডের সদস্যরা ২৯ টি ভাষায় পারদর্শী বলেও জানানো হয়।

বেশ কিছু বিতর্কিত বিষয়বস্তু নিয়ে নানা সমালোচনার মুখোমুখি হয়ে হয়েছে এই জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্মকে। বর্তমানে নবগঠিত বোর্ড এই সংবেদনশীল ও ঘৃনাজনক মন্তব্য যা মানুষকে হয়রানির মুখে ঠেলে দেয় সেদিকে কড়া নজর দেবে।

ফেসবুকের বিশ্ব বিষয়ক প্রধান নিক ক্লেগ একটি স্কাইপ সাক্ষাত্কারে রয়টার্সকে বলেছেন, বোর্ড তৈরি গুরুত্বপূর্ণ ছিল তবে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এর বিশ্বাসযোগ্যতা কতটা, িতা বোঝা যাবে।









Leave a reply